স্থগিত হওয়া সব সিরিজই খেলবেন টাইগাররা

বাংলাদেশ ক্রিকেট

বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া মহামারী ক’রোনার ভয়াল থাবার স্বীকার বাংলাদেশও। যার কারণে দেশের ক্রীড়াঙ্গনর খেলাধুলা নেই সেই মার্চ থেকে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ক্ষতির স্বীকার দেশের ক্রিকেটাঙ্গন। যেখানে স্থগিত হয়েছে ৫-৬ টি আন্তর্জাতিক সিরিজ। তবে স্থগিত হওয়া এই সব সিরিজ ভবিষ্যতে আয়োজন হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

এই পাঁচ মাসে টাইগারদের অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ঘরের মাটিতে সিরিজ, আয়ার‌ল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ, শ্রীলঙ্কা সিরিজ, পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট ম্যাচ, কতো কিছুই তো ছিল! এরমধ্যে মাত্র শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে স্থগিত হওয়া সিরিজটি নিশ্চিত করতে পেরেছে বাংলাদেশ। সেপ্টেম্বরেই দ্বীপরাষ্ট্রটিতে খেলতে যাচ্ছেন মুমিনুলরা। 

আর লঙ্কা সফর দিয়েই স্থগিত হওয়া বাকি সিরিজগুলোও আয়োজনের প্রক্রিয়া শুরু করবে বিসিবি। শনিবার (১৫ আগস্ট) সংবাদমাধ্যমের সাথে আলাপকালে বিসিবি সভাপতি জানিয়েছে, অন্য যেসব সিরিজগুলো স্থগিত হয়েছে সেগুলো একেবারে বাতিল হয়ে যায়নি। শীঘ্রই অন্য দলগুলোর বিপক্ষেও খেলবেন টাইগাররা। 

নাজমুল হাসান পাপন বলেন, ‘কয়েকটা সিরিজ আমরা মিস করে ফেলেছি। আমাদের এখানে আসার কথা ছিল অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ডের। পাকিস্তানের বিপক্ষে একটা টেস্ট বাকি আছে। আয়ারল্যান্ড সফর আছে। সবগুলো সিরিজই আমরা খেলতে পারবো। সবার সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। আমরা সময়সূচীও অনেকটা চূড়ান্ত করে ফেলেছি। ’

তবে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ঘরোয়া সিরিজটি শেষপর্যন্ত বাতিল হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন বিসিবি সভাপতি। কারণ এখন পর্যন্ত অজিদের সঙ্গে সমঝোতায় পৌঁছুতে পারেনি বিসিবি। 

এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘অস্ট্রেলিয়া ছাড়া বাকি সবগুলো সিরিজই আমরা খেলতে পারবো। অস্ট্রেলিয়া সময় দিতে পারছে না। কারণ তাদেরও অনেকগুলো সিরিজ আটকে আছে। সেজন্যে ওই সফরের বিষয়ে আমরা কোন সিদ্ধান্তে আসতে পারিনি। ’

১৪ অক্টোবর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম টেস্ট সিরিজের মাধ্যমে আবারো আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরছে বাংলাদেশ। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *