দ্বিতীয় টেস্টে জয় হলো বৃষ্টির; রেকর্ড গড়ল ইংল্যান্ড

ক্রিকেট

সাউদাম্পটনে ইংল্যান্ড – পাকিস্তানের মধ্যকার দ্বিতীয় টেস্টে অবশেষে জয় হয়েছে বৃষ্টির। টানা পাঁচ দিনই বৃষ্টির দাপটের পর ড্র হয়েছে টেস্ট৷ ফলে শেষ টেস্টটি ইংলিশদের জন্য সিরিজ জয়ের আর পাকিস্তানের সিরিজ বাঁচানোর লড়াই।

সাউদাম্পটনে টেস্টের পঞ্চম ও শেষ দিন বৃষ্টির জন্য প্রথম দুই সেশনে খেলা সম্ভব হয়নি। শেষ সেশনে খেলা শুরু হলে জ্যাক ক্রলির ফিফটিতে ৪ উইকেটে ১১০ রান করার পর ইনিংস ঘোষণা করে ইংল্যান্ড। এরপর ড্র মেনে নেন দুই অধিনায়ক। প্রথম ইনিংসে পাকিস্তান অলআউট হয়েছিল ২৩৬ রানে। প্রথম টেস্ট জিতে তিন ম্যাচের সিরিজে এগিয়ে রয়েছে ইংল্যান্ড।

সাউদাম্পটনে সিরিজ বাঁচানোর ম্যাচে টস জিতে ব্যাটিং করতে নেমে বৃষ্টিবিঘ্নিত প্রথম দিনেই ব্রডদের দাপটে ৫ উইকেট হারিয়ে কোণঠাসা হয় পাকিস্তান। দ্বিতীয় দিনে আলোকস্বল্পতার কারণে খেলা হয় ৪০ ওভার। তৃতীয় দিনে তো এক বলও মাঠে গড়ায়নি।

সাউদাম্পটন টেস্টের চতুর্থ দিনটা অবশ্য কোনো বাধা ছাড়াই শুরু হয়। কিন্তু ১০ ওভার খেলা হতে না হতেই আবারো হানা দেয় বৃষ্টি। ১০.২ ওভার খেলা হতেই বৃষ্টির কারণে চতুর্থ দিনের খেলা সমাপ্ত ঘোষণা করেন আম্পায়ররা। ফলে পঞ্চম দিনে বৃষ্টি হোক বা না হোক ম্যাচের ফলাফল যে আসছেনা এটা প্রায় নিশ্চিত।

চতুর্থ দিনে ২২৩/৯ নিয়ে খেলতে নামা পাকিস্তান ৩২ বল টিকতে সক্ষম হয়। আর ১৩ রান যোগ করে প্রথম ইনিংসে তারা অলআউট হয়েছে ২৩৬ রানে। শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে সাজঘরে ফিরেছেন মোহাম্মদ রিজওয়ান। দশম উইকেটে নাসিম শাহকে (১*) নিয়ে রিজওয়ান স্কোরবোর্ডে যোগ করেছেন মূল্যবান ৩১ রান।

বিদায়ের আগে ১৩৯ বলে ৭ বাউন্ডারিতে ৭২ রানের লড়াকু ইনিংস উপহার দিয়েছেন উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান রিজওয়ান। দলের পক্ষে এটিই সর্বোচ্চ ইনিংস।এছাড়াও ওপেনার আবিদ আলী ৬০ ও বাবর আজম করেছেন ৪৭ রান।

ইংল্যান্ডের হয়ে স্টুয়ার্ট ব্রডের শিকার সর্বোচ্চ ৪ উইকেট। এছাড়া জিমি অ্যান্ডারসন ৩টি এবং স্যাম কারেন ও ক্রিস ওকস নিয়েছেন ১টি করে উইকেট। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে ৯৮ ওভার খেলা হবে চতুর্থ দিনে।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ওপেনার ররি বার্নসের উইকেট হারায় স্বাগতিকরা। কোন রানা করেই শাহীন আফ্রিদির বলে ফিরে যান এই ইংলিশ ওপেনার। ৫ ওভার ব্যাটিংয়ের পর বৃষ্টির বাগড়ায় বন্ধ হয় ম্যাচ। আর দিনের খেলা শুরু সম্ভব হয়নি। দিনশেষে অপরাজিত থাকেন জ্যাক ক্রাওলি ৫* ও ডমিনিক সিবলি ২* রানে।

শেষ দিনে ব্যাটিংয়ে নেমে দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান ডম সিবলি ও জ্যাক ক্রলি শুরু থেকে খেলেন দারুণ আস্থার সঙ্গে। নিজেকে পুরোপুরি গুটিয়ে রেখেছিলেন ওপেনার সিবলি। নিজের জোনে বল পেলেই শট খেলছিলেন ক্রলি। ৭ চারে ৫৩ রান করা ক্রলিকে এলবিডব্লিউ করে ৯১ রানের জুটি ভাঙেন মোহাম্মদ আব্বাস। পরে সিবলিকে কট বিহাইন্ড করেন এই পেসার।

ওলি পপকে লেগ স্পিনার ইয়াসির শাহ এলবিডব্লিউ করার পর বেশিদূর এগোয়নি খেলা। শেষ ঘণ্টায় খেলা যেতেই ৪৩.১ ওভারে ১১০ রানে ইনিংস ঘোষণা করে দেন জো রুট। ইংল্যান্ডের মাটিতে এটাই সর্বনিম্ন রানে ইনিংস ঘোষণা। প্রথম ইনিংসে সর্বনিম্ন রানে ইনিংস ঘোষণার রেকর্ডও এটি।

আগামী শুক্রবার একই মাঠে হবে তৃতীয় ও শেষ টেস্ট।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ
পাকিস্তান (১ম ইনিংস) ২৩৬/১০ ( মোহাম্মদ রিজওয়ান ৭২, আবিদ আলী ৬০, স্টুয়ার্ট ব্রড ৪/৫৬, জেমস অ্যান্ডারসন ৩/৬০)

ইংল্যান্ড (প্রথম ইনিংস) ১১০/৪ (ডিক্লেয়ারড) (জ্যাক ক্রাওলি ৫৩ ডমিনিক সিবলি ৩২, মোহাম্মদ আব্বাস ২/২৮, শাহীন আফ্রিদি ১/২৫)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *