টাইগার যুবাদের অনুশীলন ক্যাম্প শুরু

বাংলাদেশ ক্রিকেট

প্রথমবারের মতো বাংলাদেশকে বিশ্বসেরার মুকুট এনে দিয়েছেন আকবর আলীরা। এ মুকুট ধরে রাখার দায়িত্ব ক্রিকেট বোর্ডের। তাই মুকুট ধরে রাখতে ভবিষ্যত টাইগার যুবাদের তৈরী করতে নানা পরিকল্পনাও হাতে নিয়েছিল বিসিবি। কিন্তু পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলে অনূর্ধ্ব-১৯ দলটি হয়তো এখন কোথাও ক্রিকেট সিরিজে ব্যস্ত থাকতো। অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জেতার পর এই দলটিকে নিয়ে বিসিবি ভিন্নমুখী পরিকল্পনা সাজিয়েছিল। কিন্তু ক’রোনাভাইরাস মহামারির কারণে সব পরিকল্পনা গেছে ভেস্তে!

তবে ক’রোনাকালের এই সময়টায়ও ধীরে ধীরে ক্রিকেট মাঠে ফিরছে। ক্রিকেটাররা অনুশীলনে ফেরা শুরু করেছেন। জাতীয় দলের মতো অনুশীলনের সেই পথে হাঁটছে এখন অনূর্ধ্ব-১৯ দলও। বিসিবি এই দলটির জন্য বিকেএসপিতে আবাসিক ক্যাম্পের আয়োজন করেছে। সেই ক্যাম্পের প্রথমদিন ছিল আজ সোমবার (২৪ আগস্ট)।

এই ক্যাম্পে অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ব্যাটিং কোচ হিসেবে আছেন মেহরাব হোসেন অপি। জাতীয় দলের সাবেক এই ওপেনার জানান- ‘এই ক্যাম্পকে প্রথমত তিনভাগে ভাগ করা হয়েছে। স্কিল ক্যাম্পে পেস বোলার, ব্যাটসম্যান এবং স্পিনারদের জন্য পাঁচদিনের অনুশীলন রাখা হয়েছে। এখানে বোলাররা নিজেদের স্কিলের উন্নতি সাধনের জন্য অংশ নেবে। প্রতিটি বিভাগে এখানে ক্রিকেটাররা তাদের স্কিলের সমস্যাগুলোর সমাধান খুঁজবে। এরপরের আটদিনও ব্যাটসম্যান এবং বোলাররা টানা অনুশীলনে তাদের স্কিল আরো ঝাঁলিয়ে নিতে পারবেন। শেষ পর্যায়ে থাকছে ম্যাচ প্রাকটিস। ক্যাম্পের ৪৫ জন খেলোয়াড়কে তিন ভাগে ভাগ করে ম্যাচ অনুশীলনের ব্যবস্থা করা হবে। এসব প্রাকটিস ম্যাচ থেকেই দল গঠনের জন্য খেলোয়াড়দের বাছাই করা হবে।’

ক্যাম্পে যোগ দেয়া ক্রিকেটাররা এমন আয়োজনের জন্য বিসিবিকে ধন্যবাদ জানান। ক্যাম্পের ক্রিকেটার রিহাদ খান বলছিলেন- ‘এমন ক্যাম্পে সবচেয়ে বড় সুবিধা হলো নিজেদের যে ভুলগুলো আছে সেগুলো হাতে কলমে ঠিক করার সুযোগ পাওয়া যায়। কোচরা আছেন। কোন সমস্যা হলে তাদের সঙ্গে আলাপ করে সমাধান খুঁজে পাওয়া যাবে।’

দলের আরেক ক্রিকেটার প্রামানিক নওরেজ নাবিল জানান, ‘অনেকদিন পরে মাঠে ফিরে সত্যিই ভাল লাগছে। মন টানছিল অনেকদিন ধরে মাঠে ফেরার জন্য। কিন্তু ক’রোনাভাইরাস মহামারির কারণে সেটা সম্ভবপর হচ্ছিল না। বিসিবিকে ধন্যবাদ কঠিন এই সময়টায়ও তারা আমাদের এমন এক্সক্লুসিভ অনুশীলনের আয়োজন করতে পেরেছে। ট্রেনার, কোচ সতীর্থ সবাইকে একসঙ্গে পেয়ে ক্রিকেটীয় এই ফ্যাসিলিটিসের মধ্যে নিজেদের সমস্যার সমাধান করতে পারছি আমরা। বেশ ভাল লাগছে। লম্বা সময় অনুশীলনে না থাকায় আমরা সবাই একটু পিছিয়ে গিয়েছি। আশা করছি এই ক্যাম্পের মাধ্যমে সেই সমস্যা থেকে সবাই বেরিয়ে আসতে পারবো ইনশাল্লাহ।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *