১৬৭ দিন পর আন্তর্জাতিক টি-২০ ক্রিকেট ফিরছে আজ

ক্রিকেট

করোনা ভাইরাসের ধাক্কা কাটিয়ে ১১৬ দিন পর ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও ইংল্যান্ডের ম্যাচ দিয়ে টেস্ট ক্রিকেট শুরু হয়েছে। এরপর ১৩৮ দিন পর আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ দিয়ে ওয়ানডে ক্রিকেটও ফিরিয়েছে ইংল্যান্ড। টেস্ট ও ওয়ানডের পর এবার টি-টুয়েন্টি ক্রিকেটকেও মাঠে ফেরাচ্ছে ইংলিশরা। সংক্ষিপ্ত এ ফরম্যাটে তাদের প্রতিপক্ষ পাকিস্তান।

শুক্রবার (২৮ আগস্ট) শুরু হবে ইংল্যান্ড ও পাকিস্তানের তিন ম্যাচের টি-টুয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচ। ১৬৭ দিন পর দর্শকরা আবারও উপভোগ করতে পারবে আন্তর্জাতিক টি-টুয়েন্টি ম্যাচ। ম্যানচেস্টারে সিরিজের প্রথম ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় রাত ১১টায়।

ক’রোনার কারণে স্বাস্থ্য বিধি মানতে জৈব-সুরক্ষা পরিবেশ ও রুদ্ধদ্বার স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত সিরিজের প্রতিটি ম্যাচ। এর আগে পাকিস্তানের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ ১-০ ব্যবধানে জিতে নিয়েছে স্বাগতিকরা। টেস্টের মতো টি-টুয়েন্টি সিরিজেও স্বাস্থ্য বিধির সকল প্রোটকল মানতে হবে ইংল্যান্ড ও পাকিস্তানের খেলোয়াড় ও অন্যান্যদের।

টি-টুয়েন্টি স্কোয়াডে টেস্ট খেলা কোনো ক্রিকেটারকে রাখেনি ইসিবি। তবে সিরিজ জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী ইংলিশ অধিনায়ক ইয়োন মরগান। তিনি বলেন, ‘আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ খেলেছি আমরা। এবার পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-টুয়েন্টি সিরিজ খেলবো। টেস্ট ও ওয়ানডের পর এবার টি-টুয়েন্টি ক্রিকেটও ফিরছে মাঠে। এটি খুবই আনন্দের। আমরা মাঠে নামতে মুখিয়ে আছি। তবে এই সিরিজে আমাদের কঠিন পরীক্ষা দিতে হবে। কারণ এই ফরম্যাটে পাকিস্তান শক্তিশালী দল। তাদের হারানো সহজ হবে না। কিন্তু নিজেদের সেরাটা খেলতে পারলে, আমার সাফল্যের দেখা পাবো। আমাদের লক্ষ্য সিরিজ জয়।’

তবে টেস্ট সিরিজ হারলেও টি-টুয়েন্টিতে ঘুরে দাঁড়ানোর স্বপ্ন দেখছেন পাকিস্তানের অধিনায়ক বাবর আজম। তিনি বলেন, ‘টেস্ট সিরিজ হারলেও, দল হিসেবে আমরা ভালো খেলেছি। প্রথম টেস্টে ভাগ্য আমাদের সাথে ছিলো না, নয়তো সিরিজের চিত্র অন্যরকম হতে পারতো। দলের অনেকেই টেস্ট সিরিজে খেলেনি। তাই টি-২০ দলটি পুরো চাঙ্গা আছে। এই দল নিয়ে সিরিজ জয়ের ব্যাপারে আমি আশাবাদী।’

ইংল্যান্ডের দল : ইয়োন মরগান (অধিনায়ক), মঈন আলী, জনি বেয়ারস্টো, জেসন রয়, টম ব্যান্টন, স্যাম বিলিংস, টম কারান, জো ডেনলি, লুইস গ্রেগরি, ক্রিস জর্ডান, সাকিব মাহমুদ, ডেভিড মালান, আদিল রশিদ ও ডেভিড উইলি।

পাকিস্তান দল : বাবর আজম (অধিনায়ক), ফখর জামান, হায়দার আলি, হারিস রউফ, ইফতিখার আহমেদ, মোহাম্মদ রিজওয়ান, মোহাম্মদ আমির, ইমাদ ওয়াসিম, খুশদিল শাহ, মোহাম্মদ হাফিজ, মোহাম্মদ হাসনাইন, নাসিম শাহ, সরফরাজ আহমেদ, শাদাব খান, শাহিন শাহ আফ্রিদি, শোয়েব মালিক ও ওয়াহাব রিয়াজ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *