আগামী ২ বছরে ১১৪ টি ম্যাচ খেলবে টাইগাররা

বাংলাদেশ ক্রিকেট

ক’রোনার কারণে এবছর টাইগারদের অনেক সিরিজ স্থগিত হয়েছে। যেকারণে দীর্ঘ সময় ঘরে বসেই কাটাতে হয়েছে ক্রিকেটারদের। তবে আগামী দুই বছরে ব্যস্ত সূচি রয়েছে তামিম – মুশফিকদের জন্য। আগের বছরগুলোর তুলনায় প্রায় দেড়গুণ ম্যাচ আগামী ২ বছরের বেশি খেলবেন টাইগাররা। ২০২১ ও ২০২২ সালে সব মিলিয়ে টাইগাররা ১১৪ টি ম্যাচ খেলবেন। যেখানে রয়েছে ২০ টি টেস্ট, ৪৫ টি ওয়ানডে ও ৫৯ টি টি-২০ ম্যাচ।


দ্বিপাক্ষিক ও একটি ত্রিদেশীয় সিরিজের সঙ্গে এশিয়া কাপ, বিশ্বকাপ, টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করলে ম্যাচসংখ্যা আরও বাড়বে।

টাইগারদের আগামী বছরে জুনের আগ পর্যন্ত টেস্ট ম্যাচগুলো বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অন্তর্ভূক্ত হবে। এরপরের ম্যাচগুলো দ্বিপাক্ষিক সিরিজ হিসেবে গণ্য কবে।

এদিকে এ বছর থেকেই ওয়ানডে লিগ শুরু হয়েছে। তবে বাংলাদেশের মিশন শুরু হবে আগামী বছরেই। দুই বছরব্যাপী টুর্নামেন্ট চলবে ২০২৩ বিশ্বকাপের আগ পর্যন্ত। ওয়ানডে লিগ তখন বিশ্বকাপের বাছাইপর্ব হিসেবেও বিবেচনা করা হবে। ২০২৩ বিশ্বকাপের পর ওয়ানডে লিগ হয়ে যাবে তিন বছর মেয়াদী।

২০২১ ও ২০২২ সালে টাইগারদের যত খেলা:

২০২১ সাল
৪ জানুয়ারি – ২০ ফেব্রুয়ারী: ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে নিজেদের মাঠে তিনটি টেস্ট, তিনটি ওয়ানডে ও দুটি টি-টুয়েন্টি।

ফেব্রুয়ারি-মার্চ: নিউজিল্যান্ড সফরে তিনটি ওয়ানডে ও তিনটি টি-টুয়েন্টি।

মে (১৮-২৮): নিজেদের মাঠে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৩ ওয়ানডে।
জুন: শ্রীলঙ্কায় এশিয়া কাপ (সর্বনিম্ন ৬ টি ম্যাচ)।

১৮ জুন – ২৮ জুলাই: জিম্বাবুয়ে সফরে দুটি টেস্ট, তিনটি ওয়ানডে ও তিনটি টি-টুয়েন্টি।

আগস্ট: নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ঘরের মাঠে ২ টেস্ট।

৬ – ১৪ সেপ্টেম্বর: অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ঘরের মাঠে ৩ টি-২০।

২০ সেপ্টেম্বর – ১১ অক্টোবর: ইংল্যান্ডের বিপক্ষে নিজেদের মাঠে তিনটি ওয়ানডে ও তিনটি টি-টুয়েন্টি।

অক্টোবর – নভেম্বর : ভারতে টি-২০ বিশ্বকাপ (৮ টি ম্যাচ)।

১৬ নভেম্বর – ১৪ ডিসেম্বর: পাকিস্তানের বিপক্ষে নিজেদের মাঠে দুটি টেস্ট, তিনটি টি-টুয়েন্টি।

১৭ ডিসেম্বর – ৮ জানুয়ারি: নিউজিল্যান্ড সফরে দুটি টেস্ট, তিনটি টি-টুয়েন্টি।

২০২২ সাল
১৯ ফেব্রুয়ারি – ৬ মার্চ: আফগানিস্তানের হোম সিরিজে (নিরপেক্ষ ভেন্যু) তিনটি ওয়ানডে, দুটি টি-টুয়েন্টি

৯ মার্চ – ১০ এপ্রিল: সাউথ আফ্রিকা সফরে দুটি টেস্ট, তিনটি ওয়ানডে।

৯ – ২৯ মে: ঘরের মাঠে লঙ্কান বিপক্ষে ২ টেস্ট।

১৬ জুন- ১৭জুলাই: ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে দুটি টেস্ট, তিন ওয়ানডে ও তিন টি-টুয়েন্টি।

২৯ জুলাই – ৩০ আগস্ট: জিম্বাবুয়ে সফরে দুটি টেস্ট, তিনটি ওয়ানডে ও তিনটি টি-টুয়েন্টি।

সেপ্টেম্বর: এশিয়া কাপ (এসিসি ইভেন্ট)(৬ টি ম্যাচ)

২ – ৩০ অক্টোবর: নিজেদের মাঠে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ১ টেস্ট, ৩ ওয়ানডে ও ৩ টি-২০।

অক্টোবর – নভেম্বর: অস্ট্রেলিয়ায় টি-২০ বিশ্বকাপ (৮ টি ম্যাচ)

২১ নভেম্বর – ১৬ ডিসেম্বর: ভারতের বিপক্ষে নিজেদের মাঠে দুটি টেস্ট, তিনটি ওয়ানডে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *