চাকরি হারালেন ফোরল্যান

ক্লাব ফুটবল

খেলোয়াড় হিসেবে সফল হলেই যে কোচ হিসেবেও সে সফল হবেন এমন কোন বাধা ধরা নিয়ম নেই। এই যেমন উরুগুইয়ান কিংবদন্তি ফুটবলার দিয়েগো ফোরল্যান। খেলোয়াড় হিসেবে সফল ক্যারিয়ার সমাপ্ত করলেও এখন শুরু করা কোচিং ক্যারিয়ারে তেমন একটা সফলতার দেখা মিলছে না তার। দেশীয় এক ক্লাবের কোচের দায়িত্ব নিয়ে ব্যর্থতার দায়ে মাত্র ১১ ম্যাচ পরেই চাকরিচ্যুত হলেন তিনি।

উরুগুয়ের শীর্ষ বিভাগের ফুটবলে গত রবিবার নিজেদের মাঠেও ওয়ান্দেরের কাছে ২-০ গোলে হারে ফোরল্যানের দল পেনারোল। যা সর্বশেষ চার ম্যাচের মধ্যে দলটির দ্বিতীয় পরাজয়।

এমন ফলাফলের পরই ৪১ বছর বয়সী ফোরল্যানের সঙ্গে চুক্তি বাতিল করে পেনারোল কর্তৃপক্ষ। একদিন পরেই টুইট বার্তায় বিদায়ের ঘোষণা দেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ও এটলেটিকো মাদ্রিদের সাবেক এই ফুটবলার।

“পেনারোল ছেড়ে যাওয়ার সময় এসেছে। আমার কোনো অভিযোগ নেই, এটাই ফুটবল।”

এক দশক আগের দক্ষিণ আফ্রিকা বিশ্বকাপে উরুগুয়ের সেমি-ফাইনালে ওঠায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখা ফোরল্যান জিতেছিলেন টুর্নামেন্ট সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার।

পেশাদার ক্যারিয়ারে খেলোয়াড় হিসেবে পেনারোলের হয়ে ২০১৫-১৬ মৌসুমে লিগ শিরোপা জেতেন ফোরল্যান।

এরপর কয়েকবছর বিরতি দিয়ে গত ডিসেম্বরে দলটির দায়িত্ব নেওয়ার মধ্যে দিয়ে কোচিং ক্যারিয়ারের শুরু করেন তিনি। তার দায়িত্ব নেওয়ার পর মাত্র চার ম্যাচ জিতেছে মন্তেভিদেওর দলটি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *