আবারো টাইগারদের কোচ হওয়ার প্রশ্নে যা বললেন হাথুরাসিংহে

বাংলাদেশ ক্রিকেট

ক্রিকেটে বাংলাদেশ যেসব কোচের অধীনে সবচেয়ে সফল হয়েছে তাদের মধ্যে অন্যতম একটি নাম চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। টাইগারদের অনেক বড় বড় সাফল্য এনে এই কোচের বিদায়টা হয়েছে অনেক নিরবেই। ক্রিকেটার ও বিসিবির সাথে দ্বন্ধের গুঞ্জন থাকলেও ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে বাংলাদেশ ছেড়ে যান এই শ্রীলঙ্কান কোচ।

টাইগারদের দায়িত্ব ছেড়ে দেওয়ার পর লঙ্কান লায়নদের দায়িত্ব নেন তিনি। তবে সম্পর্কটা বেশিদিন স্থায়ী হয়নি তার। নিজ দেশের ক্রিকেট বোর্ডের সাথে সম্পর্ক ছিন্ন হওয়ার পর নিজের প্রথম ক্যাচিং শুরু করা কাউন্টির ক্লাব নিউ সাউথ ওয়েলসেই ফিরে গেছেন হাথুরু। অনেক দুর গেলেও আবারো বাংলাদেশের কোচ হাওয়ার প্রশ্নেই কখনো না বলতে চাননা তিনি। কেননা দুরত্ব বাড়লেও তার হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছে একটি বাংলাদেশ।

সম্প্রতি ডেইলি স্টারকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে আবার বাংলাদেশের কোচ হতে পারেন কিনা, প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন হাথুরাসিংহে।

তার ভাষ্যে,‘শেষ বলে কিছু নেই! কখনোই না বলা উচিত না। বাংলাদেশের মানুষ ও বাংলাদেশের ক্রিকেট দলের জন্য আমাদের হৃদয়ে বিশেষ জায়গা বরাদ্দ। কাজেই বিশ্ব পর্যায়ে বাংলাদেশের অগ্রগতির দিকে নিবিড় নজর থাকবে আমার।’

বাংলাদেশে থাকাকালীন সময়ে নিজের কাটানো মুহুর্ত নিয়ে তিনি আরও বলেন, ‘আমি ভাগ্যবান। কেননা সিনিয়রদের এমন সুন্দর একটা গ্রুপ আমি পেয়েছি। এদের কিছু দিক নির্দেশনা দরকার ছিল শুধু। সাথে কয়েকজন তরুণ ক্রিকেটারের পারফরম্যান্সের কারণে আমরা বেশ কিছু সাফল্য উপভোগ করেছি।’

গুঞ্জন ছিল অনেক ক্রিকেটারের সাথেই ব্যক্তিগত দ্বন্দ্ব ছিল তার। তবে এই কোচ মনে করেন কারো বিরুদ্ধে ব্যক্তিগত কোন বিদ্বেষ ছিল না তার। তার কাছে গুরুত্বপূর্ণ ছিল কেবল বাংলাদেশ দল, ‘কারো সঙ্গে  আমার ব্যক্তিগত বিরোধ ছিল নাকি? আমার কাছে বাংলাদেশ জাতীয় দল ছিল সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। দলকে যেই সমৃদ্ধ করত, তার প্রতিই আমার সমর্থন থাকত।’

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালে দায়িত্ব নেওয়ার পর এই লঙ্কান কোচ বদল এনেছেন বাংলাদেশের ক্রিকেট দর্শনে। টেস্টে ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়ার মতো দলের বিপক্ষে নিজেদের শক্তি বিচারে আগ্রাসী কৌশলে এনেছেন জয়। তার কোচিংয়েই ২০১৫ ওয়ানডে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনাল, ২০১৭ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে খেলেছে বাংলাদেশ দল। শেষ দিকে সম্পর্ক তেতো হয়ে গেলেও এই কোচের দক্ষতার কথা উঠলে বরাবরই প্রশংসায় মুখর ছিলেন মাশরাফি মর্তুজারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *