শহীদ আফ্রিদি আমার ভাইয়ের মতো: তামিম

বাংলাদেশ ক্রিকেট

বাংলাদেশ-পাকিস্তানের সম্পর্কের অতীত ইতিহাসটা মোটেও ভাল নয়। তবে বর্তমান সময়ের প্রেক্ষাপট অনেকটাউ ভিন্ন। যেই চিরশত্রু পাকিস্তানের সাথে যুদ্ধ করে স্বাধীনতা পেয়েছে বাংলাদেশ সেই তাদের সাথে তথা দুই দেশের সম্পর্কটা এখন বন্ধুত্বপূর্ণ। খেলার মাঠেও বেশ ভাল সম্পর্ক দুই দেশের ক্রিকেটারদের। পাকিস্তানের অন্যতম সেরা ক্রিকেটার শহীদ আফ্রিদি তো প্রায়ই বলে থাকেন বাংলাদেশ তার দ্বিতীয় ঘর। পাকিস্তানের ক্রিকেটারদের সাথে টাইগার ক্রিকেটাররা সম্পর্ক কতটা বন্ধুত্বপূর্ন সেটা আরেকবার জানান দিলেন তামিম ইকবাল।

বর্তমানে পাকিস্তান সুপার লিগ খেলতে পাকিস্তানে আছেন টাইগার ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম। সেখানে পাকিস্তানের একটি গণমাধ্যমে সাক্ষাৎকার দিতে পাকিস্তানের ক্রিকেটারদের নিজেদের সম্পর্কের কথা তুলে ধরেন তিনি। সে সময় তিনি বলেন, শহীদ আফ্রিদি তার ভাইয়ের মতো।

নিজের শৈষবের হিরো পাকিস্তানী ক্রিকেটার সৈয়দ আনোয়ারোর কথা উল্লেখ করে তামিম বলেন, “শুরুতে আমি খুব আগ্রাসী ছিলাম। সাঈদ আনোয়ার আর যুবরাজ সিংহের ব্যাটিং উপভোগ করতাম। খুব কম বয়সে আন্তর্জাতিক অভিষেক হয়েছে আমার। মাত্র ১৭ বছর বয়সে বাংলাদেশের হয়ে বিশ্বকাপ খেলেছি। যখন ধীরে ধীরে অভিজ্ঞতা হয়েছে, খেলাটা বুঝতে শিখেছি, তখন থেকে সবকিছু ভালো হওয়া শুরু করেছে। বিশেষ করে ২০১৫ সালের পর থেকে ওয়ানডে ফরম্যাটে আমি অনেক রান করেছি।”

বিপিএলের সুবাদে পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের সঙ্গে সুসম্পর্ক তৈরি হয়েছে তামিমের। শহীদ আফ্রিদি-শোয়েব মালিকদের সঙ্গে নানা মজার স্মৃতিও রয়েছে।

বাংলাদেশ ওয়ানডে ক্রিকেট দলের অধিনায়ক তামিম ইকবাল বলেন, “বিপিএলে একবার ওয়াহাব রিয়াজ ক্যাচ ছাড়ায় খুব রেগেছিলাম। মাঝেমাঝে এমন হয়। তবে, তার সঙ্গে আমার সম্পর্ক ভালো। শোয়েব মালিক-শাদাব খানরাও মজার মানুষ। শহীদ আফ্রিদি বড় ভাইয়ের মতো। আমরা একসঙ্গে খেলে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলাম। শোয়েব মালিকের স্ত্রী সানিয়া মির্জার সঙ্গে আমার স্ত্রীর সুসম্পর্ক রয়েছে।”

উল্লেখ্য, পিএসএলের দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে শহীদ আফ্রিদির দল মুলতান সুলতানকে ২৫ রানে হারিয়ে প্রথমবারের মতো ফাইনালে উঠেছে তামিম ইকবালের দল লাহোর কালান্দার্স।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *