হাঁটু গেড়ে নয়, বর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে অভিনব প্রতিবাদ জানাবে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল

ক্রিকেট

হাঁটু গেড়ে মাঠে বসা নয়। বরং খালি পায়ে গোল করে দাঁড়াবে দল। হ্যাঁ, আসন্ন ভারত সিরিজে বর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে ঠিক এমনই অভিনব প্রতিবাদ জানাতে চলেছে অস্ট্রেলিয়া। জর্জ ফ্লয়েডের মর্মান্তিক হত্যার পর গোটা বিশ্বজুড়ে শুরু হয়েছে ‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার’ নামক আন্দোলন। যে প্রতিবাদে শামিল হয়েছে ক্রীড়াবিশ্বও। বিশ্বের প্রায় প্রতিটা নামী অ্যাথলিটই হাঁটু গেড়ে বসে প্রতিবাদ জানিয়েছেন বর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে। এবার সেই আসরে নামছে টিম অস্ট্রেলিয়াও।

তবে হাঁটু গেড়ে মাঠে বসে প্রতিবাদ জানাবে না জাস্টিন ল্যাঙ্গারের দল। বরং অস্ট্রেলিয়া মহিলা ক্রিকেট দলের প্রতিবাদের মডেলই অনুকরণ করবেন কামিন্স-ওয়ার্নাররা। অর্থাৎ খালি পায়ে গোল করে দাঁড়াবে গোটা দল। যাকে বলা হচ্ছে ‘বেয়ারফুট সার্কল’। প্রথমবার এই দৃশ্য দেখা যাবে ২৭ নভেম্বরের ওয়ানডে-তে।

ইংল্যান্ড সিরিজে ক্রিকেটাররা হাঁটু গেড়ে না বসায় কটাক্ষের মুখে পড়তে হয়েছিল গোটা অস্ট্রেলীয় দলকে। বর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে কীভাবে প্রতিবাদ জানানো যায় বহুদিন ধরেই সেই প্ল্যান ছকতে ব্যস্ত ছিল অস্ট্রেলিয়া। অবশেষে বেয়ারফুট সার্কল নামক অভিনব প্রতিবাদের উপায় বার করে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট বোর্ড (Cricket Australia)।

যা নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার তারকা পেসার প্যাট কামিন্স বললেন, “বর্ণবিদ্বেষকে চিরতরে মুছে দিতে হবে। তার জন্য আমরা সবাই প্রতিবাদ করতে তৈরি। হাঁটু মুড়ে হয়তো আমরা বসছি না। কিন্তু বেয়ারফুট সার্কলের মাধ্যমে আমরা আমাদের মতো করে প্রতিবাদ জানাচ্ছি।”

ক্রিকেটারদের সমালোচনায় বিদ্ধ হওয়া নিয়ে কামিন্স আবার যোগ করেন, “এটা ঠিক বর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে আমরা এতদিন কিছু করিনি। আর তার জন্য অনেক সমালোচনাও করা হয়েছে আমাদের। তাই এই বেয়ারফুট সার্কলের মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটাররা এটা অন্তত প্রমাণ করে দেবে যে মানুষ হিসাবে আমরা সবাই বর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে।”

শুধু বর্ণবিদ্বেষ নয়। আবার ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে নিয়েও মতামত দিলেন কামিন্স। অস্ট্রেলীয় পেসারের দাবি শেষ তিন টেস্টে বিরাটের অনুপস্থিতি খুব বড় একটা প্রভাব ফেলবে না সিরিজের উপর।

কামিন্স বললেন, “ক্যাপ্টেন কোহলিকে নিঃসন্দেহে মিস করবে ভারত। কিন্তু কোহলি ছাড়াও ভারতে আরও অনেক বিশ্বমানের ব্যাটসম্যান আছে। যারা দিনের দিন ম্যাচে পার্থক্য গড়ে দিতে পারে। কোহলির অনুপস্থিতি খুব বড় একটা ফ্যাক্টর হবে বলে মনে হয় না।”

ভারতের বিরুদ্ধে অনেক কিছু প্রমাণ করার আছে অস্ট্রেলিয়ার সবশেষে এমনটাই জানালেন কামিন্স। বললেন, “আমরা বরাবরই নিজেদের ঘরের মাঠে খুব শক্তিশালী। কিন্তু তাতেও ভারত শেষ টেস্ট সিরিজে আমাদের হারিয়েছিল। তাই এবার আমাদের অনেক কিছু প্রমাণ করার আছে ভারতের বিরুদ্ধে। সিরিজটা হাড্ডাহাড্ডি হবে কারণ লাল বলের ক্রিকেটে দুটো দলই রয়েছে স্বপ্নের ফর্মে। আমরা কিন্তু তৈরি।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *