বিখ্যাত ধারাভাষ্যকার জ্যাকম্যান আর নেই

অন্যান্য খবর

সারে এবং ইংল্যান্ডের সাবেক পেসার রবিন জ্যাকম্যান মারা গেছেন। খেলা ছাড়ার পর দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে ধারাভাষ্য পেশায় জনপ্রিয়তা পাওয়া ক্রীড়াবিদ শুক্রবার কেপ টাউনে মারা যান।

৭৫ বছর বয়সী জ্যাকম্যান ১৯৮১ সালে ৩৫ বছর বয়সে টেস্ট শুরু করেন। চার ম্যাচে নেন ১৪টি উইকেটে। ১৯৭৪ থেকে ১৯৮৩ সাল পর্যন্ত খেলেছেন ১৫টি ওডিআই।

জ্যাকম্যানের জন্ম ১৯৪৫ সালে ভারতের শিমলায়। তার বাবা তখন সেখানে কর্মরত ছিলেন ব্রিটিশ-ইন্ডিয়ান আর্মির মেজর হিসেবে। পরের বছরই তারা ইংল্যান্ডে ফেরেন।

খেলোয়াড়ি জীবন শেষে তিনি থিতু হন দক্ষিণ আফ্রিকায়। সেখানেই ক্যারিয়ার গড়েন ধারাভাষ্যকার হিসেবে। দারুণ পরিচিতিও পান ক্রিকেট বিশ্বজুড়ে। ২০১২ সালে কণ্ঠনালীর ক্যানসারে আক্রান্ত হওয়ার পর সেরেও ওঠেন। এরপর থেকে অবশ্য ধারাভাষ্যে কমই দেখা গেছে তাকে।

এবার থেমে গেল সবকিছু। জ্যাকম্যানের নাম জড়িয়ে আছে আলোচিত একটি ঘটনার সঙ্গে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে বব উইলিস চোট পাওয়ার পর বদলি হিসেবে ডেকে পাঠানো হয় তাকে।

সফরের দ্বিতীয় টেস্ট ছিল গায়ানায়। কিন্তু গায়ানা সরকার জ্যাকম্যানকে ভিসা দিতে আপত্তি জানায়। তার স্ত্রী ছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার। বর্ণবাদ নীতির কারণে তখন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিষিদ্ধ ছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। কিন্তু স্ত্রীর সুবাদে সেদেশের ঘরোয়া ক্রিকেটে ওয়েস্টার্ন প্রভিন্স ও রোডেশিয়ার (এখনকার জিম্বাবুয়ে) হয়ে তত দিনে ১১ মৌসুম খেলে ফেলেছেন জ্যাকম্যান। দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে সেই সংযোগের কারণেই ভিসা দেয়নি গায়ানা সরকার।

কিন্তু ইংল্যান্ডের টিম ম্যানেজমেন্ট রাজনৈতিক এই চাপের কাছে মাথানত করতে অস্বীকৃতি জানায়। এই টানাপোড়েনে টেস্টই বাতিল হয়ে যায়!

তবে ক্যারিবিয়ান দেশগুলোর সরকার মিলে সিদ্ধান্ত নেয় সিরিজ বাতিল না করার। জ্যাকম্যান পরে ভিসা পান। বারবাডোজে অভিষেক হয় তার, ১৯৮১ সালের মার্চে। সেই ম্যাচে নেন ৫ উইকেট।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *