৮০ রানে ৬ উইকেট হারা পাকিস্তানকে উদ্ধার করলেন রিজওয়ান-আশরাফ

ক্রিকেট

প্রথম ইনিংসে নিউজিল্যান্ডের ৪৩১ রানের পাহাড় সম রান তাড়া করতে নেমে তৃতীয় দিনের শুরুতেই নাজেহাল পাকিস্তান। ৮০ রানে হারায় ৬ উইকেট। এরপর অভিষিক্ত অধিনায়ক রিজওয়ান ও অলরাউন্ডার ফাহিম আশরাফের ব্যাটে মান বাঁচিয়েছে তারা। ২৩৯ রানে অলআউট হলেও ফলোঅনের লজ্জায় পড়তে হয়নি সফরকারীদের।

জবাব দিতে নেমে দ্বিতীয় দিনে দুই ওপেনার মিলে কিউই পেসারদের শুরু তোপ সামলে ফেলেছিলেন। ধীরলয়ে রান বাড়িয়ে ক্রিজ আঁকড়ে থাকার চেষ্টাই ছিল তাদের। ১৫ ওভার পর্যন্ত এভাবে টিকে যাওয়ার পর ধৈর্য্যচ্যুতি। বাঁহাতি শান মাসুদ ৪২ বলে ১০ রান করে ক্যাচ দেন উইকেটের পেছনে। নাইটওয়াচম্যান মোহাম্মদ আব্বাসকে নিয়ে দিনের বাকি ৫ ওভার কাটিয়ে দেন ১৯ রান নিয়ে খেলা আবিদ আলি।

কিন্তু তৃতীয় দিনের শুরুতেই কিউই পেস তোপ সামলাতে ব্যর্থ হন আবিদ। ব্যক্তিগত ৬ রান যোগ করতেই জ্যামিসনের গতিতে পরাস্ত হয়ে ফিরে যান। নাইটওয়াচম্যান আব্বাস ফেরেন পরের ওভারেই। এরপর মিডল অর্ডারে ধ্বস নামান টিম সাউদি। একই ওভারে ফেরান আজহার-হ্যারিস সোহেলকে। টিকতে পারেননি ফাওয়াদ আলমও।

কিউইদের সবুজ গালিচায় একের পর এক ব্যাটসম্যানদের আসা যাওয়ার মিছিলে ৮০ রানে ৬ উটকেট হারায় পাকিস্তান। এরপর শক্ত প্রতিরোধ গড়ে তোলেন অধিনায়ক মোহাম্মদ রিজওয়ান-ফাহিম আশরাফ। দুজনেই তুলে নেন ফিফটি।

দুজনের জুটি ভাঙতে পারেননি কিউই পেসাররা। তাদের ১০৭ রানের জুটি ভাঙে মোহাম্মদ রিজওয়ানের রান আউটে৷ ৭১ রান করে ভুলবুঝাবুঝিতে রান আউট হন রিজওয়ান। এরপরও একাই লড়ে যান ফাহিম আশরাফ। এগুচ্ছিলেন শতকের দিকে। তার ব্যাটে ফলোঅন এড়ায় পাকিস্তান। তবে তাকে ৯১ রানে বিদায় করে সফরকারীদের ২৩৯ রানে গুটিয়ে দেন জ্যামিসন। তাতে প্রথম ইনিংসে ১৯৬ রানের লিড পায় নিউজিল্যান্ড।

স্বাগতিকদের হয়ে ৩ উইকেট নেন জ্যামিসন। এছাড়াও ২ টি করে উইকেট নেন ওয়াগনার, বোল্ট ও সাউদি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর(তৃতীয় দিন শেষে)
নিউজিল্যান্ড (প্রথম ইনিংস) ৪৩১/১০
উইলিয়ামসন ১২৯, টেলর ৭০, ওয়াটলিং ৭৩
আফ্রিদি ৪/১০৯, ইয়াসির ৩/১১৩

পাকিস্তান (১ম ইনিংস) ২৩৯/১০
ফাহিম আশরাফ ৯১, মোহাম্মদ রিজওয়ান ৭১
জ্যামিসন ৩/৩৫, ওয়াগনার ২/৫০

নিউজিল্যান্ড ১৭২ রানে এগিয়ে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *