পারফরম্যান্স করে আবারো জাতীয় দলে জায়গা করে নেবেন মাশরাফি – সাকিব

বাংলাদেশ ক্রিকেট

আসন্ন ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ থেকে বাদ পড়েছেন সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা ও টেস্ট থেকে বাদ দেওয়া হয় মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে। আর বয়স বাড়ার সাথে সাথে তাদের বাদ পড়া থেকে কামব্যাক করতে পাকিস্তানের ফাওয়াদ আলমের উদাহরণ টানলেন সাকিব আল হাসান।


এগারো বছরেরও বেশি সময় পর টেস্ট ক্রিকেটে সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে অনন্য নজির গড়েছিলেন পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান ফাওয়াদ আলম। টেস্ট ক্রিকেটে ফাওয়াদ আলম সেঞ্চুরি করেছিলেন ২০০৯ সালের জুলাইয়ে, নিজের অভিষেক ম্যাচে। এরপর গত বছরেই নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে হাঁকান শতক। আর তাইতো তার থেকে অনুপ্রেরণা নিতে পারে দীর্ঘ সময় ধরে দল থেকে বাদ পড়া যেকোনো ক্রিকেটার।

গতকাল টিভি চ্যানেল ‘একাত্তরকে’ দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে মাশরাফি ও রিয়াদের বাদ পড়া প্রসঙ্গে সাকিব বলেন, “এটা আসলে টিম ম্যানেজমেন্ট ও নির্বাচকদের ব্যাপার সম্পূর্ণ। তারা কোনটা ভালো মনে করে, ফিউচার কি চিন্তা করছে সেভাবেই পরিকল্পনা করছে হয়তো। কিন্তু একটা সিরিজে বাদ পড়া মানেই আমি মনে করিনা যে সবসময়ের জন্য বাদ পড়া। উনি যেভাবে লড়াই করে ফিরে আসে আমি আশাবাদী এমন কিছু পরের সিরিজেই হতে পারে।”

“এই সিরিজের পর আমাদের টেস্ট খেলার বড় একটা বিরতিও আছে। সুতরাং পুনরায় ভাবার সময় পাবে, এর মধ্যে ঘরোয়া ক্রিকেট খেলা হলে নির্বাচকরা তার পারফরম্যান্স দেখার সুযোগ পাবে। আসলে অনেকগুলো জায়গার উপর নির্ভর করে। এই মুহূর্তে নির্বাচকরা হয়তো ভেবেছে এটাই তাদের সেরা দল।”– যোগ করেন তিনি।

তাদের ফেরা নিয়ে সাকিব আরও বলেন, “আমি যদি পাকিস্তানের ফাওয়াদ আলমের উদাহরণ দেই, ওর প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরির ১০ বছর পর এসে আবার সেঞ্চুরি। এটাও বড় একটা বিষয়। সাধারণত কেউ তো চিন্তাও করেনি যে সে কামব্যাক করবে এবং খেলবে। সে জায়গা থেকে ও যেহেতু করতে পেরেছে তো তাদের (মাশরাফি-রিয়াদ) ভেতরেও যদি এমন ইচ্ছে থাকে এবং পারফরম্যান্স হয় তাহলে এরকম দুইয়ে দুইয়ে চার মিলতেও পারে আবার।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *