সাইফকে হারিয়ে ফেডারেশন কাপের শিরোপা জিতল বসুন্ধরা কিংস

বাংলাদেশ ফুটবল

ওয়ালটন ফেডারেশন কাপের শিরোপা জিতেছে বসুন্ধরা কিংস। সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবকে ১-০ গোলে পরাজিত করে টানা দ্বিতীয়বারের মতো শ্রেষ্ঠত্ব দখল করলো ঢাকার নব্য জায়ান্টরা।

ম্যাচের শুরুতেই গোল পেয়ে যায় বসুন্ধরা। যদিও অফসাইডে বাতিল হয় গোলটি। ১৬তম মিনিটের সময় সাইফের গোলরক্ষককে পাপ্পু হোসাইনকে একা পেয়েও জালে বল জড়াতে পারেননি বিশ্বনাথ ঘোষ।

২০তম মিনিটে গোলরক্ষক জিকোর দারূণ দক্ষতায় গোল খাওয়া থেকে রক্ষা পায় বসুন্ধরা।

২৮তম মিনিটে মাঝ মাঠের একটু সামনে থেকে কোনাকুনি শট নেন বসুন্ধরার ফরোয়ার্ড রিমন হোসেন। কিন্তু তার শট সাইফের গোলরক্ষক পাপ্পুকে ফাঁকি দিতে পারেনি।

৩২তম মিনিটে আবারও সুযোগ পায় বসুন্ধরা। ডান দিকে থ্রো করে খালেদ। এরপর সাইফের রক্ষণভাগ বল ভালোভাবে ক্লিয়ার করতে পারেননি। শেষ পর্যন্ত ডি বক্সের সামনে আবার বল পেয়ে শট নেন জোনাথন। তবে বল চলে যায় গোলপোস্টের পাশ দিয়ে। বিরতির যোগ করা সময়ে বসুন্ধরার ডি বক্সের বাম পাশে হ্যান্ডবল হলে ফ্রি কিকের বাঁশি বাজান রেফারি। যোগ করা সময়ে রহমত মিয়ার দারুন শট রুখে দেন জিকো।

প্রথমার্ধে দুই দলই খেলে দারণ। কিন্তু গোলের দেখা পায়নি গতবারের চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংবা প্রথমবার ফাইনালে ওঠা সাইফ। বিরতি থেকে ফেরার তিন মিনিট পরেই এগিয়ে যেতো পারতো সাইফ। প্রায় ৩৫ গজ দূর থেকে শট নেন রহমত মিয়া। সবাইকে ফাঁকি দিতে পারলেও গোলরক্ষক জিকোকেই যেনো ফাঁকি দিতে পারেননি সাইফের ফুটবলাররা। বরাবরের মতো এবারো শট রুখে দেন জিকো।

বিরতির পর ৫২ মিনিটের সময় এগিয়ে যায় বসুন্ধরা। ব্রাজিলিয়ান-আর্জেন্টিনার মেলবন্ধনে গোলটি পায় তারা। মাঝ মাঠ থেকে ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড রবসন ডি সিলভার পাস সরাসরি যায় সাইফের ডি বক্সে থাকা আর্জেন্টাইন বেসেরার পায়ে। এবার আর ভুল করেনি বসুন্ধরা, মাঠ গড়ানো শটে গোলরক্ষক পাপ্পুকে ফাঁকি দিয়ে বল জড়ায় সাইফের জালে।

৮৬ মিনিটে ডি বক্সের ডান কোন থেকে কেনেথের হেড দারুণ দক্ষতায় রুখে দেন জিকো। মিনিট না পেরোতেই ওকোলির শট ঠেকিয়ে বসুন্ধরাকে জিকো রক্ষা করেন। বারবার চেষ্টা করেও আর গোলের দেখা পায়নি সাইফ। ফুটবলের রাজত্ব পুনরায় দখল করে বসুন্ধরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *