বার্নলিকে হারিয়ে লিভারপুলকে পেছনে ফেলে শীর্ষে ম্যান ইউ

ক্লাব ফুটবল

বার্নলির বিপক্ষে জয়টা কাঙ্ক্ষিতই ছিল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের। তারপরও জয় পেতে ঘাম ছুটে গেছে ওলে গানার সুলশারের দলের। বার্নলির মাঠে ম্যাচ জুড়ে একের পর এক আক্রমণ করেও মিলছিল না জালের দেখা। শঙ্কা জেগেছিল পয়েন্ট হারানোর। দ্বিতীয়ার্ধে দারুণ এক গোলে ব্যবধান গড়ে দেন পল পগবা। এই জয়ে লিভারপুলকে টপকে প্রিমিয়ার লিগে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে উঠল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড।

ম্যাচের শুরু থেকে বল দখলে এগিয়ে থাকা ইউনাইটেড প্রথম সুযোগ পায় ১৭তম মিনিটে। বাম দিক থেকে লুক শর নিচু ক্রস ডি-বক্সে খুঁজে পায় ব্রুনো ফের্নান্দেসকে। তবে গোলরক্ষক নিক পোপ বরাবর শট নেন এই পর্তুগিজ মিডফিল্ডার।

২২তম মিনিটে প্রথম ভালো সুযোগ পায় গত মৌসুমে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ইউনাইটেডকে ২-০ গোলে হারানো বার্নলি। ডি-বক্সে ক্রিস উডের শট ইউনাইটেডের ডিফেন্ডার এরিক বেইলির গায়ে লেগে ক্রসবারের ওপর দিয়ে যায়।

৩৬তম মিনিটে সতীর্থের ক্রসে কাছ থেকে হেডে জালে বল পাঠিয়েছিলেন হ্যারি ম্যাগুইয়ার। তবে লাফিয়ে হেড নেওয়ার সময় তিনি বার্নলির এক ডিফেন্ডারের পিঠে হাঁটু দিয়ে আঘাত করায় ফাউলের বাঁশি বাজান রেফারি।

বিরতির আগে এগিয়ে যেতে পারতো ইউনাইটেড। ডি-বক্সের অনেকটা বাইরে থেকে মার্সিয়ালের ডান পায়ের জোরালো শটে লাফিয়ে ক্রসবারের ওপর দিয়ে বল পাঠান গোলরক্ষক পোপ। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে ভালো সুযোগ নষ্ট করেন নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফেরা এদিনসন কাভানি। ফের্নান্দেসের পাসে ছয় গজ বক্সের সামনে থেকে দুর্বল শট নেন উরুগুয়ের এই স্ট্রাইকার।

অবশেষে ৭১তম মিনিটে দলকে এগিয়ে নেন পগবা। ডান দিক থেকে মার্কাস র‍্যাশফোর্ডের ক্রসে ডি-বক্সে দারুণ ভলিতে ঠিকানা খুঁজে নেন এই ফরাসি মিডফিল্ডার। বল বার্নলির ম্যাট লোটোনের পায়ে লেগে জালে জড়ায়।

শেষ দিকে সমতায় ফেরার দুটি ভালো সুযোগ পেলেও কাজে লাগাতে পারেনি বার্নলি। যোগ করা সময়ে গোলরক্ষককে একা পেয়েও ব্যবধান বাড়াতে পারেননি মার্সিয়াল।

১৭ ম্যাচে ১১ জয় ও তিন ড্রয়ে ৩৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে ইউনাইটেড। সমান ম্যাচে ৩৩ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে নেমে গেছে শিরোপাধারী লিভারপুল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *