এক সিরিজে ২০ ক্রিকেটার খেলিয়ে বিশ্বরেকর্ড গড়ল ভারত!

ক্রিকেট

আইপিএল শেষ করেই অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে তিন ফরম্যাটের সিরিজ খেলতে গিয়েছিল ভারত। যেখানে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ ঠিকঠাক ভাবে শেষ করলেও চার ম্যাচ টেস্ট সিরিজে একপ্রকার বিধ্বস্ত হয়েছে ভারত। যেখানে এই টেস্ট সিরিজের চার ম্যাচে তারা খেলাতে হয়েছে ২০ জন ক্রিকেটারকে। যা ক্রিকেট ইতিহাসে বিশ্বরেকর্ড!


এক সিরিজে ২০ জন খেলানো এবারই প্রথম।
ইনজুরিতে একের পর এক তারকা ক্রিকেটার চোট পেয়ে সিরিজ থেকে ছিটকে যান। যার ফলে তাঁদের বদলে এই সিরিজে অভিষেক ঘটে একাধিক ক্রিকেটারের। এমনকি একজন ব্যাটিং এবং তার বদলে অন্যজনকে কিপিংও করিয়েছে সফরকারী দলটি।

ভারতীয় দলের হয়ে ৪টি টেস্টেই খেলেছেন মাত্র দু’জন ক্রিকেটার। আজিঙ্কা রাহানে এবং চেতেশ্বর পূজারা ছাড়া আরও ১৮ জন ক্রিকেটার ভারতের হয়ে খেলেছেন বর্ডার-গাওস্কর সিরিজে।

প্রথম টেস্টের পর পিতৃত্বকালীন ছুটি নিয়ে দেশে ফিরে আসেন বিরাট কোহালি। সেই ম্যাচেই চোট পেয়েছিলেন পেসার মহম্মদ শামি। দ্বিতীয় টেস্টে অভিষেক ঘটে ব্যাটসম্যান শুভমন গিল এবং পেসার মহম্মদ সিরাজের। এছাড়াও দলে আসেন রবীন্দ্র জাডেজা এবং ঋষভ পন্থ। বসতে হয় পৃথ্বী শ এবং ঋদ্ধিমান সাহাকে। 

মেলবোর্নে দ্বিতীয় টেস্ট জিতে নেয় অজিঙ্ক রাহানের ভারত। কিন্তু সেই জয়ী দল সিডনিতে নামাতে পারেননি রাহানেরা। চোট পান পেসার উমেশ যাদব, তাঁর বদলে সিডনিতে তৃতীয় ম্যাচে দলে অভিষেক ঘটে নবদীপ সাইনির। ওপেনার ময়াঙ্ক আগরওয়ালের বদলে দলে আসেন রোহিত শর্মা।

আর চলতি শেষ টেস্টে চোটের জন্য বাদ পড়েন হনুমা বিহারী, রবীন্দ্র জাডেজা, রবিচন্দ্রন অশ্বিন এবং যশপ্রীত বুমরা। এমনই অবস্থা হয় ভারতীয় দলের, যে ওয়াশিংটন সুন্দর, শার্দূল ঠাকুর এবং টি নটরাজনকে যুক্ত করতে বাধ্য হয় তারা। চতুর্থ টেস্টে অভিষেক ঘটে ওয়াশিংটন এবং নটরাজনের। তাছাড়াও দলে আসেন শার্দূল এবং ময়াঙ্ক।

২০১৮ সালে ইংল্যান্ড সফরে ১৭ জন ক্রিকেটের খেলেছিলেন ভারতের হয়ে। ২০১৪-১৫ সালের অস্ট্রেলিয়া সফর এবং ১৯৫৯ সালের ইংল্যান্ড সফরেও খেলেছিলেন ১৭ জন ক্রিকেটার। ১৯৬১ সালের পর এক সিরিজে ভারতীয় দলে এত জন ক্রিকেটার খেলার ঘটনা প্রথমবার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *