১০৭ বছরের রেকর্ড ভেঙে নতুন ইতিহাস গড়লেন অ্যান্ডারসন

ক্রিকেট

স্টুয়ার্ট ব্রডের পরিবর্তে দ্বিতীয় টেস্টে লঙ্কানদের বিপক্ষে সুযোগ পেয়েই দুর্দান্ত বোলিং করেছেন জেমস অ্যন্ডারসন। প্রথম দিনের মতো দ্বিতীয় দিনেও শ্রীলঙ্কাকে ভোগালেন। দুর্দান্ত বোলিংয়ে স্বাগতিকদের আটকে রাখলেন চারশর নিচে। দারুণ পারফর্ম করে ১০৭ বছরের ইতিহাসে নতুন এক বিরল রেকর্ডে নাম লিখিয়েছেন জিমি।


গল আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম ইনিংসে ৩৮১ রানে গুটিয়ে যায় শ্রীলঙ্কা। জবাবে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই ১ রানের ব্যবধানে দুই উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়তে বসেছিল ইংল্যান্ড। তবে জো রুট ও জনি বেয়ারস্টোর দৃঢ়তায় সে ধাক্কা কাটিয়ে উঠেছে তারা। তৃতীয় সেশনে ব্যাটিংয়ে নামা ইংল্যান্ড দিন শেষ করেছে ২ উইকেটে ৯৮ রান নিয়ে। রুট ৬৭ ও বেয়ারস্টো ২৪ রানে ব্যাটিং করছেন। সফরকারীরা এখনও পিছিয়ে ২৮৩ রানে।

প্রথম দিন ৩ উইকেট নেওয়া অ্যান্ডারসন দ্বিতীয় দিনে নেন আরও তিনটি। টেস্ট ক্যারিয়ারে যা তার ৩০তম পাঁচ উইকেট। পেসারদের মধ্যে টেস্টে অ্যান্ডারসনের চেয়ে বেশিবার পাঁচ উইকেট আছে কেবল নিউ জিল্যান্ড কিংবদন্তি রিচার্ড হ্যাডলির, ৩৬বার।

সব মিলিয়ে ৪০ রানে ৬ উইকেট নিয়েছেন টেস্ট ইতিহাসে সর্বোচ্চ উইকেটশিকারি ফাস্ট বোলার! তাতে একটা দারুণ কীর্তি গড়েছেন। গত ১০৭ বছরে টেস্ট ক্রিকেট যা কখনো দেখেনি। বয়স ৩৮ বা এর বেশি—এমন পেসারদের ক্ষেত্রে গত ১০৭ বছরে এটিই সবচেয়ে ভালো বোলিং ফিগার।

ক্যারিয়ারে ৩০তম বারের মতো ইনিংসে ৫ উইকেট পাওয়ার দিনে অ্যান্ডারসনের রেকর্ড হয়েছে আরও কয়েকটি। ৪০ রানে ৬ উইকেট অ্যান্ডারসনের নিজেরই একটা সেরার স্বীকৃতি পাচ্ছে—বিদেশের মাটিতে এর চেয়ে ভালো বোলিং ফিগার আর কখনো ছিল না ‘জিমি’র। আর এশিয়ার মাটিতেও অ্যান্ডারসনের চেয়ে বেশি বয়সে ৫ উইকেট পাননি আর কোনো ফাস্ট বোলার।

আজ অ্যান্ডারসনের বয়স ৩৮ বছর ১৭৭ দিন। এর আগে ফাস্ট বোলারদের মধ্যে এশিয়ায় সবচেয়ে বেশি বয়সে ৫ উইকেটের রেকর্ড ছিল নিউজিল্যান্ড কিংবদন্তি রিচার্ড হ্যাডলির—১৯৮৮–৮৯ মৌসুমে মুম্বাইয়ে ভারতের বিপক্ষে ৫ উইকেট নিয়েছিলেন ৩৭ বছর ১৪৫ দিন বয়সে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *