রোনালদোর ইতিহাস গড়া ম্যাচে জয়ে ফিরলো জুভেন্টাস

ক্লাব ফুটবল

এক দিকে গত মৌসুমের লিগ শিরোপাজয়ী দল, অপরদিকে দ্বিতীয় বিভাগ থেকে উঠে আসা এক দলের লড়াই। কিন্ত মাঠের খেলায় প্রথমার্ধ শেষে দেখে বোঝার উপায় ছিলো না দুই দলের শক্তিমত্তার পার্থক্য! জুভেন্টাসের সাথে একেবারে সমানে সমান লড়াই করে যাচ্ছিলো নবাগত স্পেৎসিয়া। তবে বিরতির পর আর চ্যাম্পিয়নদের আটকাতে পারেনি তারা। এক ম্যাচ পর আবারও জয়ে ফিরল আন্দ্রেয়া পিরলোর দল।

ঘরের মাঠ আলিয়াঞ্জ স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার রাতে ইতালিয়ান সিরি-আ’র ম্যাচটি ৩-০ ব্যবধানে জিতেছে জুভেন্টাস। আলভারো মোরাতার গোলে এগিয়ে যাওয়ার পর ব্যবধান বাড়ান ফেদেরিকো চিয়েসা। শেষ দিকে স্কোরলাইনে নাম লেখান ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো।

ম্যাচের শুরুতেই গোল খেতে বসেছিল জুভেন্টাস। ম্যাচের অষ্টম মিনিটে প্রতি-আক্রমণে স্পেৎসিয়ার ডিফেন্ডার রিকার্দো মার্কিসার শট পোস্টের পাশ দিয়ে বেরিয়ে যায়।

২৯তম মিনিটে সতীর্থের লম্বা করে বাড়ানো বল ডি-বক্সের মুখে ফাঁকায় আয়ত্ত্বে প্রায় পেয়েই গিয়েছিলেন আলেক্স সান্দ্রো। গোলরক্ষক ইভান প্রোভেদেল ছুটে এসে প্রতিহত করেন। ফিরতি বল পেয়ে রোনালদো শট নিতে দেরি করায় সুযোগটি নষ্ট হয় জুভেন্টাসের। বিরতির খানিক আগে আসরের সর্বোচ্চ গোলদাতার সামনে দুর্ভাগ্য বাঁধ সাধে। এবার ফাঁকায় বল পেয়ে পর্তুগিজ তারকার নেওয়া কোনাকুনি শট পোস্টে বাধা পায়।

৬১তম মিনিটে একসঙ্গে দুটি পরিবর্তন করেন কোচ পিরলো। ওয়েস্টন ম্যাককেনির জায়গায় মোরাতা ও ফ্রাবোত্তার বদলি ফেদেরিকো বের্নারদেস্কিকে নামান তিনি। এই দুই বদলির নৈপুণ্যেই এগিয়ে যায় জুভেন্টাস।

বাঁ দিক থেকে বের্নারদেস্কির একটু উঁচু করে বাড়ানো বল ছয় গজ বক্সে পেয়ে প্রথম ছোঁয়ায় বাঁ পায়ের শটে গোলটি করেন মোরাতা।

ব্যবধান দ্বিগুণ করা গোলেও জড়িয়ে আছে বের্নারদেস্কির নাম। তার পাস পেয়ে চিয়েসার নেওয়া প্রথম শট ঝাঁপিয়ে ঠেকান গোলরক্ষক, কিন্তু বিপদমুক্ত করতে পারেননি তিনি। ছুটে গিয়ে আলগা বল জালে পাঠান ইতালিয়ান এই ফরোয়ার্ড।

রোনালদোর ৭৭তম মিনিটে নেওয়া ফ্রি কিক ঝাঁপিয়ে ফেরান প্রোভেদেল। অবশেষে ৮৯তম মিনিটে সাফল্যের দেখা পান পাঁচবারের বর্ষসেরা এই ফুটবলার। ডান দিক থেকে রদ্রিগো বেন্তানকুরের পাস ধরে ডি-বক্সের মুখ থেকে নিখুঁত শটে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন তিনি।

লিগে এই নিয়ে টানা তিন ম্যাচে গোল করলেন রোনালদো। আসরে তার মোট গোল হলো ২০টি। এই গোলের মাধ্যমেই আরও একটি রেকর্ড নিজের করে নেন এই পর্তুগীজ যুবরাজ। একমাত্র ফুটবলার হিসেবে টানা ১২ মৌসুম ২০ গোল বা তার বেশি করার রেকর্ডও গড়েন সিআরসেভেন।

যোগ করা সময়ের শেষ মিনিটে গিয়াসি ডি-বক্সে ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টি পায় স্পেৎসিয়া। কিন্তু ব্যবধান কমাতে পারেননি আন্দ্রে গালাবিনোভ। তার দুর্বল স্পট কিক ঠেকিয়ে দেন ভয়চেখ স্ট্যাসনি।

২৪ ম্যাচে ১৪ জয় ও সাত ড্রয়ে ৪৯ পয়েন্ট নিয়ে তিন নম্বরে আছে ইউভেন্তুস।

৫৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে ইন্টার মিলান। ৪ পয়েন্ট কম নিয়ে দুইয়ে তাদের নগর প্রতিদ্বন্দ্বী এসি মিলান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *