সেভিয়াকে কাঁদিয়ে রূপকথাকে হার মানিয়ে ফাইনালে বার্সেলোনা

ক্লাব ফুটবল

আরও একবার নিজেদের শ্রেষ্ঠত্বের প্রমান দিলো বার্সেলোনা। এবার কোপা দেল রে’র সেমিফাইনালের প্রথম লেগে ০-২ গোলে পরাজিত হয়ে এসেও দ্বিতীয় লেগে ঘুরে দাঁড়ানোর নজির গড়লো কাতালানরা। সেই সাথে টিকিয়ে রাখলো মৌসুমে শিরোপা জয়ের ন্যূনতম আশাও।

ঘরের মাঠে কোপা দেল রে’র সেমিফাইনালের দ্বিতীয় লেগে আজ যখন সেভিয়ার মুখোমুখি হয় বার্সা তখন পরিস্থিতি কিন্ত মেসিদের অনুকূলে ছিলো না। গত মাসে হওয়া প্রথম লেগে প্রতিপক্ষের মাঠে লজ্জাজনক পরাজয়ের স্বাদ নিয়ে ফেরায় ঘরের মাঠে বড় জয়ের কোন বিকল্প ছিলো না ব্লগ্রানাদের।

দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেলে যে বার্সার যে আসল রূপের দেখা মেলে তার আরও একটি উজ্জ্বল দৃষ্টান্তের মঞ্চায়ন হলো হাজারও ইতিহাসের স্বাক্ষী হয়ে থাকা ক্যাম্প ন্যুতে।

ম্যাচের শুরুতে ডেম্বেলের গোলে এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। ডেম্বেলেকে বল বাড়িয়ে ডি বক্সে ঢুকে যান মেসি। কিন্তু ফরাসি ফরোয়ার্ডকে পাসের সুযোগ দেননি প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়রা। ডি বক্সের বাইরে থেকে আরেকটু সরে গিয়ে নিখুঁত ফিনিশিংয়ে খুঁজে নেন জাল।

৭১তম মিনিটে প্রতি আক্রমনে কাপন ওঠে বার্সা শিবিরে। লুকাস ওকাম্পসকে ডি বক্সে ফাউল করলে পেনাল্টি পায় সেভিয়া। যদিও আর্জেন্টাইন এই তারকার দুর্বল স্পট কিক সহজেই ফিরিয়ে বার্সাকে ম্যাচে রাখেন গোলবারের অতন্দ্র প্রহরী মার্ক আন্দ্রে টার-স্টেগান।

ম্যাচের একেবারে অন্তিম মুহূর্তে বার্সাকে সমতায় ফেরার স্বস্তি এনে দেন পিকে। বদলি হিসেবে নামা গ্রিজমানের বাঁ দিক থেকে বাড়ানো ক্রসে হেডে দলকে উচ্ছ্বাসে ভাসান এই স্প্যানিশ ডিফেন্ডার।

নির্ধারিত সময়ের খেলা ২-০ গোলে সমাপ্ত হওয়ায় দুই লীগ মিলিয়ে খেলায় থাকে ২-২ গোলের সমতা। ম্যাচ গড়ায় এক্সট্রা টাইমে। যার শুরুতেই গোল করে বার্সাকে স্বপ্নের লিড এনে দেন ব্রেথওয়েট। বাকি সময়ে সেই এক গোলেরলিড ধরে রাখে কাতালানরা। সেই সাথে পৌঁছে যায় কোপা দেল রে’র ফাইনালেও।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *