দুৃর্দান্ত হ্যাটট্রিক করে পরের ওভারেই খেলেন ৬ বলে ছয় ছক্কা; ধনঞ্জয়ার বিরল রেকর্ড

ক্রিকেট

বলা হয় ক্রিকেট অনিশ্চয়তার খেলা, যেখানে নিশ্চিত বলে কোন কিছু নেই। পুরো ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দিতে কখনো একটি বল কিংবা কখনো একটি ওভারই যথেষ্ট। ক্রিকেট মাঠে এমন চিত্র দেখা গেছে অনেকবারই। এবার সেই চিত্র আরেকবার দেখা গেল শ্রীলঙ্কা-উইন্ডিজ ম্যাচে।


দুই দলের মধ্যকার সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে কি দেখা গেলোনা। উইন্ডিজদের ব্যাটিংয়ের ইনিংসে দেখা গেল লঙ্কান স্পিনার ধনঞ্জয়ার ম্যাচ ঘুরিয়ে দেওয়া দুর্দান্ত হ্যাটট্রিক। আবার পরের ওভারেই সেই ধনঞ্জয়াকেই পোলার্ডের ছয় ছক্কা! ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথম দেখা গিয়েছে এমন চিত্র, যেখানে একই বোলার হ্যাটট্রিকেে পরে ছয় ছক্কা খাওয়ার লজ্জার রেকর্ড গড়েছেন।

এদিন আগে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ১৩১ রান তোলে শ্রীলঙ্কা। এই লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে দুই ওপেনার লেন্ডল সিমন্স আর এভিন লুইস শুরুর জুটিতে তোলেন ৫২ রান।

চতুর্থ ওভারে বল হাতে এসে ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেন ধনঞ্জয়া। ওভারের দ্বিতীয় বলে প্রথমে লুইসকে ফিরিয়ে দেন তিনি। ১০ বলে ২৮ রান করে বিদায় নেন লুইস। এরপরের বলে আউট করেন ক্রিস গেইলকে। দুই বছর পর জাতীয় দলের হয়ে খেলতে নেমে খালি হাতে সাজঘরে ফেরেন গেইল। এরপর চতুর্থ বলে নিকোলাস পুরানকে আউট করে হ্যাটট্রিক পূরণ করেন ধনঞ্জয়া।

তৃতীয় লঙ্কান হিসেবে হ্যাটট্রিক করে পুরো ম্যাচের চিত্র পাল্টে দেন ধনঞ্জয়া। কিন্তু তাঁর হ্যাটট্রিকের আনন্দ মুহূর্তের মধ্যেই মিলিয়ে যায়। পরের ওভারেই এসেই তিক্ত অভিজ্ঞতা হয় লঙ্কান স্পিনারের। ষষ্ঠ ওভারে বল হাতে আসেন ধনঞ্জয়া।

তখন ক্রিজে ছিলেন পোলার্ড। ওই ওভারের ছয় বলে ছয়টি ছক্কা হাঁকান তিনি। ওভারে প্রথম বলে লং অনের ওপর দিয়ে মারেন ছয়। পরের বলে সাইট স্ক্রিনের দিকে বল মাঠের বাইরে পাঠান। তৃতীয় ছক্কাটি যায় লং অফের ওপর দিয়ে। এরপর ডিপ মিড উইকেট দিয়ে হাঁকান চতুর্থ ছক্কা। শেষে লং অন ও মিড উইকেটে হাঁকান পরপর দুই ছক্কা। শেষ পর্যন্ত ১১ বলে ৩৮ রান করে দেশকে জেতান পোলার্ড।

ছয় বলে ছক্কা হাঁকিয়ে ভাগ বসান যুবরাজ সিংয়ের রেকর্ডে। যুবরাজের পর দ্বিতীয় ক্রিকেটার হিসেবে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে এক ওভারে ছয়টি ছক্কা মারার রেকর্ড গড়লেন পোলার্ড। ২০০৭ বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের স্টুয়ার্ট ব্রডের বলে এক ওভারে ছয়টি ছক্কা মেরেছিলেন ভারতের যুবরাজ সিং। শেষ পর্যন্ত ১১ বলে ৩৮ রান করে দেশকে জেতান পোলার্ড।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *