আইপিএলে থাকছেনা দর্শক

আইপিএল

কিছুদিন আগে হয়ে গেছে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) চতুর্দশ আসরের নিলাম। দল গুছিয়ে নিয়েছে প্রতিটি ফ্র্যাঞ্চাইজি। এবার চূড়ান্ত হলো প্রতিযোগিতার দিনক্ষণও। আগামী ৯ এপ্রিল মাঠে গড়াবে ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক ক্রিকেটের জমজমাট এ টুর্নামেন্ট। তবে সবশেষ আসরের মতো এবারও দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে সকল খেলা অনুষ্ঠিত হবে।

রবিবার এক বিবৃতির মাধ্যমে আইপিএল শুরুর তারিখ জানায় ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)। ৯ এপ্রিল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স ও রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর লড়াই দিয়ে শুরু হবে চতুর্দশ আইপিএল। ভেন্যু চেন্নাইয়ের এম চিদাম্বরম স্টেডিয়াম। এবারের আসরের পর্দা নামবে ৩০ মে। আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামে আয়োজিত হবে মেগা ফাইনাল।

করোনা ভাইরাসের কারণে সংযুক্ত আরব আমিরাতে আইপিএলের সবশেষ আসর অনুষ্ঠিত হয়েছিল। তবে এবার ভারতের মাটিতেই সবগুলো ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। ছয়টি ভেন্যু তে শিরোপার জন্য লড়াই করবে আটটি দল। ভেন্যুগুলো হচ্ছে কলকাতা, ব্যাঙ্গালুরু, চেন্নাই, দিল্লি, আহমেদাবাদ ও মুম্বাই।

লিগ পর্বে প্রতিটি দল চারটি করে ভেন্যুতে খেলবে। ৫৬টি লিগ ম্যাচের মাঝে চেন্নাই, মুম্বাই, কলকাতা ও ব্যাঙ্গালুরুতে ১০টি করে ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। আহমেদাবাদ ও দিল্লিতে হবে আটটি করে ম্যাচ। আইপিএল ইতিহাসে এবারই প্রথম কোনো দল হোম ভেন্যুতে খেলার সুযোগ পাচ্ছে না। প্রতিটি দলকে অন্য দলের নিরপেক্ষ মাঠে গিয়ে খেলতে হবে।

ভারতে করোনা শনাক্তের হার বৃদ্ধি পাওয়ায় মাঠে দর্শক আনতে ইচ্ছুক নয় বিসিসিআই। এছাড়া জৈব সুরক্ষা বলয় ভাঙার জন্য কিছুদিন আগেই বন্ধ হয়ে গেছে পাকিস্তান সুপার লিগ (পিএসএল)। তাই কোনো ধরণের ঝুঁকি নিতে চাইছে না বোর্ড।

বিসিসিআইয়ের এমন সিদ্ধান্তে অবশ্য খুশি না ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ফ্র্যাঞ্চাইজি কর্তা বলেছেন, সমর্থকরাই যদি মাঠে আসতে না পারে তাহলে দেশের মাটিতে আইপিএল করে কী লাভ হবে! তাছাড়া দেশজুড়ে করোনা পরিস্থিতি ভাল না হলেও একাধিক শহরে প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হচ্ছে। এরচেয়ে অদ্ভুত ব্যাপার কিছু হতে পারে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *