ফুটবল থেকে পাকিস্তানকে নিষিদ্ধ করল ফিফা

আন্তর্জাতিক ফুটবল

বিশ্ব ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফা পাকিস্তান ফুটবল ফেডারেশনের (পিএফএফ) সদস্যপদ সাময়িকভাবে স্থগিত ঘোষণা করেছে। মূলত তৃতীয় পক্ষের হস্তক্ষেপের অভিযোগ আনা হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে।

এর আগে ২০১৫ সালে ফেডারেশনের প্রেসিডেন্ট হিসেবে ফয়সাল শাহ হায়াত নির্বাচিত হওয়ার পর তার বিরুদ্ধে ভোট কারচুপির অভিযোগ আনা হয়। ওই ঘটনার পর স্থবির হয়ে পড়ে পাকিস্তানের ফুটবল।

সমস্যার সমাধানে দেশটির হাই কোর্ট হস্তক্ষেপ করে। তাদের নিযুক্ত আশফাক হুসেইন শাহ প্রশাসন দায়িত্ব নেয় পাকিস্তান ফুটবল ফেডারেশনের। কিন্তু তা স্বীকৃতি পায়নি ফিফার কাছ থেকে।

ফয়সাল শাহর কাছ থেকে আশফাক গ্রুপ দায়িত্ব নেওয়ায় ২০১৭ সালের অক্টোবর থেকে ২০১৮ সালের মার্চ পর্যন্ত ছয় মাস পিএফএফ’র সদস্যপদ স্থগিত রাখে ফিফা। বিতর্কিত নির্বাচনের প্রায় চার বছর পর ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে হামজা খানের নেতৃত্বে পিএফএফ নরমালাইজেশন কমিটি নিয়োগ দেয় বিশ্ব ফুটবল নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

গত বছরের ডিসেম্বরে হামজা পদত্যাগ করলে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দেওয়া হয় মুনির সাধানাকে। এই জানুয়ারিতে কমিটির প্রধান হিসেবে হারুন মালিককে স্থায়ীভাবে নিযুক্ত করা হয়। কিন্তু স্থানীয় গণমাধ্যমের খবর, গত ২৭ মার্চ আশফাক গ্রুপ পিএফএফ কার্যালয়ে হামলা চালায় এবং তা দখলে নেয়। জোরপূর্বক দায়িত্ব নিয়ে তারা আইনের মারাত্মক লংঘন করেছে বলে ফিফা জানিয়েছে।

ফেডারেশনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আগে তাদের সতর্ক করে চিঠিও দিয়েছে ফিফা। এক বিবৃতিতে তারা বলেছে, গোটা পিএফএফ চত্বর, অ্যাকাউন্ট, প্রশাসন ও যোগাযোগ চ্যানেল আবারও হারুন মালিকের নরমালাইজেশন কমিটির পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে না যাওয়া পর্যন্ত স্থগিতাদেশ বহাল থাকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *