রাবাদাদের মতো দেশকে রেখে সাকিবরা আইপিএলে গেলে কি হত? ভাবতে পারছেন না মাশরাফি

আইপিএল

চলছে পাকিস্তান ও দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যকার ওয়ানডে সিরিজের শেষ ম্যাচ। আগের দুই ম্যাচে দুই দল একটি করে জয় পাওয়ায় এটা অলিখিত ফাইনাল হয়ে দাঁড়িয়েছে। কিন্তু এ ম্যাচে নেই প্রোটিয়াদের অনেক নামীদামী তারকা খেলোয়াড়। বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিন শেষে যাতে আইপিএলের শুরু থেকেই খেলতে পারেন তাই আগেই দেশ ছেড়েছেন তারা। ঠিক এমনটা কোনো বাংলাদেশের খেলোয়াড় করলে কি হতে পারতো তা ভাবতেই পারছেন বাংলাদেশ দলের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা।


আগামী শুক্রবার থেকে শুরু হচ্ছে বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ আইপিএল। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব অনেকটাই বেড়েছে। তাই এ থেকে বাঁচতে দেশটিতে নামার পর বিদেশি খেলোয়াড়দের জন্য বাধ্যতামূলক ৭ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। তাই আসরের শুরু থেকে খেলতে হলে এ সময়ের আগেই দেশটিতে পৌঁছতে হবে। তাই পাকিস্তানের বিপক্ষে শেষ ম্যাচে খেলছেন না ডেভিড মিলার,কাগিসো রাবাদা, আনরিক নরকিয়া, লুঙ্গি এনগিডি, কুইন্টন ডি ককদের মতো তারকা খেলোয়াড়রা।

দক্ষিণ আফ্রিকার মতো দেশে দলের সেরা তারকাদের অনুপস্থিতি নিয়ে তেমন কোনো আলোচনাই হচ্ছে না। এমনকি ম্যাচের সময় ধারাভাষ্যেও নয়। অথচ কদিন আগে সাকিব আল হাসানের শ্রীলঙ্কায় টেস্ট সিরিজ খেলতে না যাওয়া নিয়ে কতো আলোচনা-সমালোচনা হয়েছে। দেশের খেলা বাদ দিয়ে আইপিএলে খেলবেন বলে অনেকের তোপে পড়েছেন সাকিব। এমনকি এ নিয়ে বিসিবির কর্মকর্তাদের সঙ্গেও দ্বন্দ্ব হয়েছে। সেখানে সিরিজ নির্ধারণীর মতো গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে না থাকলে কি হতে পারতো সেটা ভাবতেই পারছেন না মাশরাফি।

বুধবার নিজের ফেসবুকে সাবেক অধিনায়ক লিখেছেন, ‘ডেভিড মিলার,কাগিসো রাবাদা, আনরিক নরকিয়া, লুঙ্গি এনগিডি, কুইন্টন ডি কক।

সবাই ফর্মে আছে এবং প্রথম দুই ম্যাচেই ভালো পারফর্ম করছে। আজ দেখছি সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে নাই। কারণ বুঝলাম কোয়ারেন্টিন পূরণ করতে হবে আইপিএলের জন্য। ম্যাচের ৩০ ভাগ শেষ কিন্তু কোন আওয়াজ নাই কমেন্ট্রিতে বা অন্য কোথাও।

কল্পনায় আনতে পারছিনা এরকম অবস্থায় আমাদের কেউ গেলে কি হতে পারতো
সাকিব আল হাসান, মোস্তাফিজুর রহমান, আল্লাহ তোদের সহায় হোন…’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *