ফখরের দুর্দান্ত ব্যাটিং; তারপরও রুদ্ধশ্বাস ম্যাচ জিতে সিরিজ জয় পাকিস্তানের

ক্রিকেট

চার ম্যাচ সিরিজে আগের তিন ম্যাচে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে ছিল পাকিস্তান। আজ সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে প্রোটিয়াদের ৩ উইকেটে হারিয়ে ওয়ানডে সিরিজের পর টি-টোয়েন্টি সিরিজও ৩-১ ব্যবধানে নিজেদের করে নিল পাকিস্তান। প্রথমটিতে সহজ ম্যাচ যেমন কঠিন করে জিতেছিল সফরকারীরা আজ শেষ ম্যাচটিতেও দেখা গেছে একই চিত্র।


এদিন আগে ব্যাট করতে নেমে সব কটি উইকেট হারিয়ে ১৯.৫ ওভারে ১৪৪ রান করতে সক্ষম হয় দক্ষিণ আফ্রিকা। জবাবে সমান ১৯.৫ ওভারেই ৩ উইকেটের জয় তুলে নে পাকিস্তান।

রান তাড়া করতে নেমে শুরুটা ভাল হয়নি পাকিস্তানের। দলীয় ১ রানেই ০ রানে বিদায় নেন রিজওয়ান। তবে এরপর ৯১ রানের বড় জুটি গড়েন ফখর জামান ও বাবর আজম। যেখানে ঝড়ো ব্যাটিংয়ে একাই ৩৪ বলে ৬০ রান করেন ফখর জামান।

এরপরই ব্যাটিং ধ্বস নামে পাকিস্তান শিবিরে। ২৩ বলে ২৪ রান করে ফেরেন বাবর। দ্রুতই ফেরেন হাফিজ-হায়দার আলী। আসিফ-ফাহিম আশরাফরাও দাঁড়াতেই পারেননি। ৯৮/২ থেকে ১২৯/৭ উইকেটে পরিণত হয় পাকিস্তান। শেষ দিকে ম্যাচ ঘুরিয়ে দিয়ে প্রায় নিজের করে নিয়েছিল স্বাগতিকরা।

কিন্তু যখন ৮ বলে পাকিস্তানের জিততে ১৬ রান প্রয়োজন ঠিক সেই সময় মালাগার পর পর দুই নো বলের এক ফ্রি হিটে ছক্কা হাঁকিয়ে বলের সাথে রান সমান করেন নেওয়াজ। শেষ বলে জিততে ৬ রান প্রয়োজন হলে ৫ বলেই জয় তুলে নেয় পাকিস্তান।

এর আগে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই এইডেন মার্করামকে হারায় প্রোটিয়ারা। এরপর বড় জুটি গড়েন মালান ও ডুসেন। ২৮ বলে ৩৩ রান করে ফেরেন মালান। পরে একাই লড়াই করে ফিফটি তুলে নেন ডুসেন। ৩৬ বলে ৫২ রান করে ফেরেন তিনি। পরবর্তীতে আরো কোন ব্যাটসম্যানই দুই অঙ্কের ঘরে পৌঁছতে পারেনি। তাতেই ১৪৪ রানে গুটিয়ে যায় প্রোটিয়ারা।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

দক্ষিণ আফ্রিকা: ১৯.৩ ওভারে ১৪৪/১০(ডুসেন ৫২, মালান ৩৩; আশরাফ ৩/১৭, হাসান ৩/৪০)

পাকিস্তান: ১৯.৫ ওভারে ১৪৯/৭( ফখর জামান ৬০, নেওয়াজ ২৫*; মাগালা ২/৩৩, উইলিয়ামস ২/৩৯)

ফলাফল: পাকিস্তান ৩ উইকেটে জয়ী।
সিরিজ ফলাফল: পাকিস্তান ৩-১ ব্যবধানে জয়ী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *