ফাইনাল হারের প্রতিশোধ নিয়ে মুম্বাইয়ের বিপক্ষে সর্বোচ্চ জয়ের রেকর্ড গড়ল দিল্লি

আইপিএল

আইপিএলের সব শেষ আসরের (২০২০ সালের) ফাইনাল হারের বদলা নিয়েই নিল দিল্লি ক্যাপিটালস। আইপিএল ২০২১-এর প্রথম সাক্ষাতে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সকে ৬ উইকেটে হারিয়ে দিল ঋষভ পান্তের দল। একই সাথে চেন্নাইয়ের মাঠে ২০১০ সালের পর আবার জয়ে দেখা পেয়েছ দিল্লি। অন্যদিকে মুম্বাইয়ের বিপক্ষে সবচেয়ে বেশি ১৩ বার ম্যাচ জয়ের রেকর্ডও নিজের করে নিল তারা।


এদিন আগে ব্যাট করতে নেমে ১৩৭ রানের মধ্যে মুম্বাইকে আটকে দেয় দিল্লি। জবাবে ১৯.১ ওভারে ৬ উইকেট হাতে রেখে জয়ের বন্দরে পৌছে যায় পান্তের দল।

লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুটা ভাল হয়নি দিল্লি ক্যাপিটালসেরও। ১১ রানে প্রথম উইকেট হারিয়ে ফেলে ঋষভ পন্থের দল। মাত্র ৭ রান করে সাজঘরে ফিরে যান পৃথ্বী শ। এরপর স্টিভ স্মিথের সঙ্গে জুটি বেঁধে দিল্লির ইনিংসকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার কাজ করতে থাকেন শিখর ধাওয়ান। দুই ক্রিকেটারের মধ্যে ৫৩ রানের পার্টনারশিপ হয়।

২৯ বলে ৩৩ রানের ঠান্ডা মাথার ইনিংস খেলে কাইরন পোলার্ডের বলে আউট হন স্মিথ। স্মিথ আউট হওয়ার পর ধাওয়ান ধীরে ধীরে দিল্লিকে জয়ের দিকে এগিয়ে নিয়ে যান। ১৫তম ওভার থেকে হাত খোলেন দিল্লি ক্যাপিটালসের বাঁ-হাতি ওপেনার। রাহুল চাহারের ওই ওভার থেকে একটি ছক্কা ও চার হাঁকান ধাওয়ান। তবে ওই ওভারে তিনি আউটও হয়ে যান। তাঁর ৪২ বলে ৪৫ রান পাঁচটি চার ও একটি ছক্কা দিয়ে সাজানো।

১৬তম ওভারের প্রথম বলে ফলো থ্রুতে রান আউট মিস করেন ট্রেন্ট বোল্ট। তারপরেও লড়াই চালিয়ে যায় মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। দিল্লির অধিনায়ক ঋষভ পান্তকে (৭) খুব দ্রুত সাজঘরে ফিরিয়ে দিয়ে দিল্লিকে ধাক্কা দেন জসপ্রীত বুমরাহ। তবে শেষ পর্যন্ত ললিত-হেটমায়ারের সাবধানী ব্যাটিংয়ে জয় তুলে নেয় দিল্লি। ২৫ বলে ২২ রান করে অপরাাজিত থাকেন ললিত যাদব। ৮ বলে ১৪ রান করে অপরাজিত থাকেন শিমরোন হেটমায়ার।

এর আগে দিল্লি ক্যাপিটালসের বিরুদ্ধে টসে জিতে আগে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয় মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। চেন্নাইয়ের চিপক স্টেডিয়ামের শুরুটা সেই মতো করতে পারেনি ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা। ৯ রানের মাথায় প্রথম উইকেট হারায় মুম্বাই। ২ রান করে মার্কাস স্টইনিসের বলে আউট হন কুইন্টন ডি কক। তবে এরপর ব্যাট খোলেন অধিনায়ক রোহিত। সাবলীলভাবে ছক্কা ও চার হাঁকাতে থাকেন মুম্বাইয়ের অধিনায়ক। অবশ্য মারতে গিয়েই আউট হন হিটম্যান। অমিত মিশ্রার বলে ক্যাচ আউট হয়ে সাজঘরে ফেরন রোহিত (৪৪)। তিনটি চার ও তিনটি ছক্কা আসে তাঁর ব্যাট থেকে।

রোহিত আউট হওয়ার আগেই আবেশ খানের শিকার হন সূর্যকুমার। তাঁক ১৫ বলে ২৪ রানের ইনিংস চারটি চার দিয়ে সাজানো। কোনও রান করেই সাজঘরে ফিরে যান হার্দিক পান্ডিয়া। মাত্র ১ রান করে আউট হন ক্রুণাল পান্ডিয়া। কাইরন পোলার্ড আজ ২ রানের বেশি করতে পারেননি।শেষ বেলায় ব্যাট চালিয়ে মুম্বাইকে সম্মানজনক স্কোরের কাছে নিয়ে যান বাঁ-হাতি ইশান কিষাণ। যদিও ২৮ বলে ২৬ রানের বেশি করতে পারেননি বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান। ২২ বলে ২৩ রান করে আউট হন জয়ন্ত যাদব।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স: ২০ ওভারে ১৩৭/৯(রোহিত ৪৪, ইশান ২৬; মিশ্রা ৪/২৪, আভিষ খান ২/১৫(

দিল্লি ক্যাপিটাল: ১৯.১ ওভারে ১৩৮/৪(ধাওয়ান ৪৫, স্মিথ ৩৩; পোলার্ড ১/৯, জাদব ১/২৫)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *