যে ছয়টি ক্লাব যোগ দিয়েও সুপার লিগ থেকে বেরিয়ে আসছে

ক্লাব ফুটবল

গত ১৯ এপ্রিল (সোমবার) ইউরোপীয়ান ফুটবলের ১২ টি শীর্ষ ক্লাব একযোগে ‘ইউরোপিয়ান সুপার লিগ’ নামে নতুন টূর্ণামেন্ট আয়োজনের ঘোষণা দেয়। নতুন এই লিগকে ইউয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের বিকল্প হিসেবে ভাবছেন আয়োজকরা। ইউরোপীয়ান ফুটবল আভিজাত্যের লড়াই চ্যাম্পিয়নস লিগকে পাশ কাটিয়ে এমন লিগকে বেশিরভাগ ফুটবলপ্রেমীই স্বাভাবিকভাবে নিতে পারেননি। ইউয়েফা ও ফিফা এই লিগে অংশ নেয়া ক্লাব ও ফুটবলারদের নিষিদ্ধের ঘোষণা দেয়। এমন পরিস্থিতিতে আজ (বুধবার) বার্সেলোনা, ম্যানইউ, ম্যানসিটিসহ আরোও অন্তত তিনটি ক্লাব এই লিগ থেকে বেরিয়ে আসার আভাস দিয়েছে।

রিয়াল মাদ্রিদের সভাপতি ফ্লোরোন্তিনো পেরেজ ইউরোপিয়ান সুপার লিগের মূল কারিগর। যিনি কিনা ইতোমধ্যে নতুন এই লিগের প্রথম চেয়ারম্যানের দায়িত্বও গ্রহন করেছেন। পেরেজের ভাষ্য, এই লিগ বড় ক্লাবগুলোকে অর্থনৈতিক মুক্তি দিবে। এই ফুটবল সংগঠকের আরো দাবি করেন , সুপার লিগ ফুটবলকে বাঁচিয়ে রাখতে সাহায়্য করবে। তবে কেবল বড় ক্লাবগুলোকে নিয়ে এমন লিগ আয়োজন ছোট ক্লাবগুলোকে ধ্বংসের মুুখে ফেলে দিবে, নষ্ট হবে ফুটবলের সৌন্দর্য। এমন আশঙ্কা থেকে অধিকাংশ ফুটবল ভক্ত ও বিশেষজ্ঞগণ এই লিগের বিরোধিতা করে আসছেন। লিভারপুল, বার্সেলোনা, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ভক্তরা তো এই ধরনের সিধান্ত থেকে সরে আসতে ক্লাবের প্রতি আবেদন জানিয়েছে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, চেলসি ও ম্যানচেস্টর সিটি সুপার লিগ থেকে বেরিয়ে আসতে চায়। ক্লাব দু’টি এই লিগ থেকে বেরিয়ে আসার প্রক্রিয়া নিয়ে কাজ করতে শুরু করেছে। বার্সেলোনা সভাপতি হোয়ান লাপোর্তা জানিয়েছেন, ভক্তদের বিপরীতে গিয়ে এই লিগে খেলবে না বার্সেলোনা। আরেক স্প্যানিশ ক্লাব অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদও সুপার লিগ থেকে নিজদের নাম প্রত্যাহার করে নেয়ার প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে।

এদিকে, ব্রিটিশ গণমাধ্যমগুলোতে গুঞ্জন আর্সেনাল ও ম্যানইউও এই সুপার লিগ থেকে বেরিয়ে আসতে চায়। ইতোমধ্যে ম্যানইউ এক্সিকিউটিভ ভাইস চেয়ারম্যান পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন এড উডওয়ার্ড।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *