বেটিসে হোঁচট খেয়ে লিগ শিরোপা অন্যের হাতে তুলে দিলো রিয়াল

ক্লাব ফুটবল

স্প্যানিশ লা লিগায় বড় দলের বিপক্ষে খেলা হলে অপ্রতিরোধ্য হয়ে ওঠে রিয়াল মাদ্রিদ। সেই তারায় আবার পুঁচকে দলের মুখোমুখি হলে নিজেদের হারিয়ে খোঁজে! এবার যেমন মৌসুমের গুরুত্বপূর্ণ সময়ে এসে রিয়াল বেটিসের সাথে গোলশূন্য ড্র করে পয়েন্ট হারালো লস ব্ল্যাংকসরা। এই ড্রয়ে শিরোপা দৌড়ে বেশ খানিকটা পিছিয়ে পড়ল জিনেদিন জিদানের দল।

আলফ্রেডো ডি স্টেফানো স্টেডিয়ামে শনিবার রাতে বৃষ্টি ভেজা ম্যাচটি গোলশূন্য ড্র হয়েছে। লিগে এই নিয়ে শেষ তিন রাউন্ডে লের মধ্যে দুবার ড্র করল শিরোপাধারীরা। রোববার এথলেটিক বিলবাওয়ের মাঠে জিতলে রিয়ালের চেয়ে ৫ পয়েন্টে এগিয়ে যাবে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। বার্সারও সুযোগ থাকছে নিজেদের ম্যাচে জিতে রিয়ালকে টপকে যাওয়ার।

সর্বশেষ তিন মৌসুমেও নিজেদের আঙিনায় বেতিসের বিপক্ষে গোল করতে পারেনি স্পেনের সফলতম দলটি। রিয়ালের মাঠে ২০১৭-১৮ মৌসুমে ১-০ ও পরের মৌসুমে ২-০ গোলে জিতেছিল বেটিস। আর গত মৌসুমে চ্যাম্পিয়নদের মাঠে গোলশূন্য ড্র করেছিল তারা।

দারুণ ছন্দে থাকা বেনজেমা বাঁ দিক দিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে প্রথম সুযোগ তৈরি করেন। তার কাটব্যাক পেয়ে রদ্রিগোর নেওয়া শট রক্ষণে প্রতিহত হয়। ওই আক্রমণেই সতীর্থের পা ঘুরে বল পেয়ে জোরালো শট নেন ফরাসি ফরোয়ার্ড, যদিও সেটি ঠেকাতে খুব একটা বেগ পেতে হয়নি গোলরক্ষককে। প্রথমার্ধে দুই দল মিলিয়ে ওই এই একটি শটই ছিল লক্ষ্যে।

দ্বিতীয়ার্ধের দশম মিনিটে ডান দিক থেকে রদ্রিগোর আচমকা জোরালো শট গোলরক্ষককে ফাঁকি দিয়ে ক্রসবারে বাধা পায়। পাঁচ মিনিট পর বেতিসের দারুণ একটি সুযোগ নষ্ট হয়। তিন জনের মধ্যে দিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে গোলরক্ষক বরাবর শট নেন আর্জেন্টাইন মিডফিল্ডার গিদো রদ্রিগেস।

৬৫তম মিনিটে বড় বাঁচা বেঁচে যায় রিয়াল মাদ্রিদ। ডি-বক্সে ফাঁকায় বল পেয়েছিলেন বোরহা ইগলেসিয়াস। সামনে একমাত্র বাধা গোলরক্ষক। কিন্তু শট নিতে দেরি করে ফেললেন স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড, ছুটে এসে বিপদমুক্ত করেন থিবো কোর্তোয়া। পরের মিনিটে পাল্টা আক্রমণে লুকা মদ্রিচের শট ঝাঁপিয়ে ফেরান বেতিস গোলরক্ষক ক্লাওদিও ব্রাভো।

৭৭তম মিনিটে মার্কো আসেনসিওকে তুলে এডেন হ্যাজার্ডকে নামান কোচ। চোট কাটিয়ে এক মাসেরও বেশি সময় পর মাঠে নামলেন বেলজিয়ান ফরোয়ার্ড। পার্থক্য গড়ে দেওয়ার মতো তেমন কিছুই করতে পারেননি তিনি।

আরও একটি বিবর্ণ পারফরম্যান্সের পর শিরোপা ধরে রাখার সম্ভাবনা আরেকটু ফিকে হয়ে গেল রিয়ালের। ৩৩ ম্যাচে ২১ জয় ও আট ড্রয়ে তাদের পয়েন্ট ৭১। ২ পয়েন্ট বেশি নিয়ে শীর্ষে এক ম্যাচ কম খেলা অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। ৩১ ম্যাচে ৬৮ পয়েন্ট নিয়ে তিন নম্বরে বার্সেলোনা। খুব বেশি পিছিয়ে নেই সেভিয়াও। ৩২ ম্যাচে ৬৭ পয়েন্ট নিয়ে চার নম্বরে তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *