হেসে-খেলে কলকাতাকে হারাল দিল্লি

আইপিএল

সকালের সূর্য দেখলেই যেমন বুঝা যায় সারাদিনটা কেমন যাবে ঠিক তেমনি অল্প পূজির কলকাতার বিপক্ষে প্রথম ওভারেই শিভম মাভিকে যখন ছয় বলে ছয় বাউন্ডারি মেরে ইনিংস শুরু করলে পৃথ্বী শ তখনই জানা হয়ে গেছে ম্যাচের ফলাফল। পৃথ্বী ঝড়ে হেসে খেলে কলকাতাকে ৭ উইকেটে হারিয়েছে দিল্লি ক্যাপিটালস।


আহমেদাবাদে ব্যাট করতে নেমে ৬ উইকেটে ১৫৪ রান সংগ্রহ করে কলকাতা। জবাবে ৭ উইকেটে হাতে রেখে ২১ বল আগেই জয় তুলে নেয় দিল্লি। এ জয়ে ব্যাঙ্গালুরকে টপকে টেবিলের দুইয়ে উঠে এল পান্তের দল। হারলেও পাঁচে থাকছে কলকাতা।

১৫৫ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে প্রথম থেকেই মারমুখী মেজাজে ব্যাটিং করেন পৃথ্বী শ। শিবম মাভির প্রথম ওভারে ৬টি চার মারেন দিল্লি ক্যাপিটালসের ওপেনার। অজিঙ্ক রাহানের পর দ্বিতীয় ক্রিকেটার হিসেবে আইপিএলে এই কাজ করে দেখান তরুণ শ। ১৮ বলে অর্ধশতরান করে চলতি টুর্নামেন্টের দ্রুততম ফিফটির রেকর্ড গড়েন ।

অন্যদিকে পৃথ্বী শ এর সঙ্গী দারুণ ইনিংস খেলে দিল্লিকে সহজ জয়ের রাস্তায় নিয়ে যান শিখর ধাওয়ান। ৪৭ বলে ৪৬ রান করেন শিখর ধাওয়ান। চারটি চার ও একটি ছক্কা আসে তাঁর ব্যাট থেকে। ৪১ বলে ৮২ রানের অনবদ্য ইনিংস খেলেন পৃথ্বী শ। ১১টি চার ও তিনটি ছক্কা আসে তাঁর ব্যাট থেকে। ৮ বলে ১৬ রান করে আউট হন ঋষভ পন্থ। ১৬.২ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে নির্ধারিত লক্ষ্যে পৌঁছে যায় দিল্লি।

এর আগে কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিরুদ্ধে টসে জিতে আগে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল দিল্লি ক্যাপিটালস। নেতা পান্থের সিদ্ধান্তকে সমর্থন জানিয়ে ম্যাচের প্রথম থেকেই দুর্দান্ত লাইন এবং লেন্থে বোলিং করেন দিল্লির বোলাররা। ১২ বলে ১৫ রান করে আউট হন কেকেআরের ওপেনার নীতীশ রানা। একটি চার ও একটি ছক্কা আসে তাঁর ব্যাট থেকে। উল্টোদিকে কেকেআরে অন্য ওপেনার শুভমান গিল বেশ কয়েকটি নজরকাড়া শট মারেন। যদিও ক্রিজের অন্য প্রান্ত থেকে তাঁকে সাহায্য করার মতো ব্যাটসম্যান পাওয়া যায়নি।

পাঞ্জাব কিংসের বিরুদ্ধে দুর্দান্ত ছন্দে থাকা রাহুল ত্রিপাঠীকে আজ ফিঁকে মনে হয়েছে। বেশকিছু মিস হিটের পর ১৭ বলে ১৯ রান করে তিনি আউট হন। দুটি চার আসে তাঁর ব্যাট থেকে। কোনও রান না করেই সাজঘরে ফিরে যান গত ম্যাচের নায়ক তথা কেকেআর অধিনায়ক ইয়ন মর্গ্যান। আরও একবার শূন্যতেই আউট হন সুনীল নারিন।

জন্মদিনে ব্যাট করতে নামা আন্দ্রে রাসেলের সঙ্গে শুভমান গিলের মাত্র ৭ রানের পার্টনারশিপ হয়। ৩৮ বলে ৪৩ রান করে আউট হন গিল। তিনটি চার ও একটি ছক্কা আসে তাঁর ব্যাট থেকে। ঢিমেতালে এগিয়ে কেরিয়ারের ৬ হাজার টি২০ রান পূর্ণ করেন আন্দ্রে রাসেল। তারপরেই ব্যাট খুলতে শুরু করেন দ্রে রাস।

১০ বলে ১৪ রান করে সাজঘরে ফিরে যান দীনেশ কার্তিক। একটি চার ও একটি ছক্কা হাঁকান ডিকে। শেবেলায় বেশ কয়েকটি বড় শট হাঁকিয়ে কেকেআর-কে লড়াকু টোটালের কাছে পৌঁছে দেন আন্দ্রে রাসেল। জন্মদিনে ২৭ বলে ৪৫ রানের ঝকঝকে ইনিংস খেলেন ড্রি রাস। দুটি চার ও একটি ছক্কা আসে তাঁর ব্যাটচ থেকে।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

কলকাতা নাইট রাইডার্স: ২০ ওভারে ১৫৪/৬(রাসেল ৪৭*, গিল ৪৩; প্যাটেল ২/৩২, স্টয়নিস ১/৭)

দিল্লি ক্যাপিটালস: ১৬.৩ ওভারে ১৫৬/৩(পৃথ্বী ৮২, ধাওয়ান ৪৬; কামিন্স ৩/২৪)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *