ঢাকায় ম্যাচ হেরে স্ত্রী সহ খুনের হুমকি পেয়েছিলেন ডু প্লেসিস

অন্যান্য খবর

২০১১ বিশ্বকাপে ভারত ও শ্রীলঙ্কার সাথে যৌথ আয়োজক ছিল বাংলাদেশ। সেই টুর্নামেন্টে ঢাকার মিরপুরে স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়েছিল নিউজিল্যান্ড বনাম দক্ষিণ আফ্রিকার ম্যাচ। যেখানে প্রোটিয়ারা হেরেছিল ৪৯ রানে। আর সেই হারের কারণে প্রোটিয়া সাবেক অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিস এবং তার স্ত্রী ইমারি ভিসের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে না কি মৃত্যুর হুমকি দেওয়া হয়েছিল। দীর্ঘদিন পর জানা গেল সেই ঘটনা।


ম্যাচটিতে নিউজিল্যান্ডের দেয়া ২২২ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ৪০ বল হাত থাকতেই প্রোটিয়ারা গুটিয়ে যায় ১৭২ রানে। সেই ম্যাচে ৬ নাম্বারে ব্যাটিং করতে নামা ডু প্লেসিস খেলেছিলেন ৪৩ বলে ৩৬ রানের ইনিংস। কিন্তু কাজে আসেনি প্লেসিসের কষ্টার্জিত ইনিংসটি। ফলে প্রোটিয়ারা আরো একবার হারের মুখ দেখে বিশ্বকাপের নক আউট ম্যাচে।

ডু প্লেসিস জানিয়েছেন এমন ঘটনার পর কতখানি ভেঙে পড়েছিলেন তারা। “ম্যাচের পর আমি এবং আমার স্ত্রী মৃত্যুর হুমকি পেয়েছিলাম। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চালু করতেই এগুলো আমাদের সামনে আসে। সেখানে অনেক আপত্তিকর বিষয় ছিল। যেগুলো আমি বলতে চাইনা।” ক্রিকইনফোর ক্রিকেট মান্থলিতে জানান ফাফ।

নাথান ম্যাককুলামের বলে জেপি ডুমিনি ১২বলে ৩ রান করে বোল্ড আউট হবার পর ওই ম্যাচে ২৭.৪ ওভারে দলীয় ১২১ রানে উইকেটে আসেন প্লেসিস। কিন্তু একই ওভারে ঘটে আরো বড় বিপর্যয়। প্লেসিসের সাথে ভুল বুঝাবুঝিতে রান আউট হয়ে যান এবিডি ভিলিয়ার্স। যিনি ৩৫ রানে উইকেটে ছিলেন। অনেকেই এই রান আউটের জন্য দায়ী করেন প্লেসিসকে। যার জন্য ম্যাচ হেরে যায় তাঁরা। পরে শেষের দিকের ৪ ব্যাটসম্যানের কেউই দুই অংকের স্কোর করতে না পারায় ম্যাচ হেরে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নেয় দক্ষিণ আফ্রিকা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *