ব্যাট হাতে দুর্দান্ত তামিম-মুশফিক; সাকিবদের হারালো হেসেখেলে

বাংলাদেশ ক্রিকেট

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিন ওয়ানডে সিরিজ শুরুর আগে একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের নেতৃত্বাধীন বিসিবি সবুজ দলকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে তামিম ইকবালের নেতৃত্বাধীন বিসিবি লাল দল।

বিকেএসপিতে হাইস্কোরিং এই ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ৩ উইকেট হারিয়ে ২৮৪ রান জড়ো করে সবুজ দল। জবাবে লাল দল লক্ষ্য ছুঁয়ে ফেলে ৫ উইকেট ও ৯ ওভার হাতে রেখেই।

প্রাথমিক দলের ২২ জন খেলোয়াড়কে লাল ও সবুজ দলে ভাগ করা হয়েছে। সবুজ দলের অধিনায়ক হিসেবে আছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। লাল দলের অধিনায়ক তামিম ইকবাল।

প্রথমে ব্যাট করতে নেমে অর্ধশতক হাঁকান আফিফ হোসেন ধ্রুব (৬৪*) , অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (৬২*) ও সৌম্য সরকার (৬০)। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ রান করেন আফিফ। সবুজ দল করে ৩ উইকেটে ২৮৪ রান। অন্যান্যদের মধ্যে নাঈম শেখ ৪৩ বলে ৩৮, সাকিব আল হাসান ২০ বলে ২৮ ও মেহেদী হাসান মিরাজ ১৬ বলে ১৭ রান করেন

২৮৫ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে লাল দল অধিনায়ক তামিমের ব্যাটে উড়ন্ত সূচনা পায়। ১৫ রান করে লিটন দাস ফিরলেও তামিম দ্রুতগতিতে রান তুলতে থাকেন।তামিম মাত্র ৫৮ বলে ৮০ রান করার পথে হাঁকান ৪টি চার ও ৪টি ছক্কা।

স্বেচ্ছায় মাঠ ছাড়ার আগে অর্ধশতকের দেখা পেয়েছেন মুশফিকুর রহিমও। ৫৫ বলে ৬৪ রান করার পথে ৬টি চার ও ২টি ছক্কা হাঁকান তিনি।

ইমরুল কায়েস ৩৭ বলে ৩৩ ও শেষদিকে শেখ মেহেদী হাসানের ২৭ বলে ২৪। এছাড়া মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের ১২ বলে ২৬ ও দুইবার নামা মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের ২৫ বলে ২৮ ও ৪ বলে অপরাজিত ২ থাকেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

সবুজ দল : ২৮৪/৩ (৪৫ ওভার)

নাঈম ৩৮ (৪৩)*, সৌম্য ৬০ (৭০)*, সাকিব ২৮ (২০), মিঠুন ৩ (১০), রিয়াদ ৬২ (৫৪)*, আফিফ ৬৪ (৫৪)*, মিরাজ ১৭।

মেহেদি ২/৪০, শরিফুল ১/২৮।

লাল দল : ২৮৮/৫ (৪১ ওভার)

তামিম ৮০ (৫৮), লিটন ১৫ (১৬), ইমরুল ৩৩ (৩৭), মুশফিক ৬৪ (৫৫)*, মেহেদী ২৪ (২৭)*, সাইফউদ্দিন ২৬ (১২)।

মাহমুদউল্লাহ ২/২৯, সাকিব ১/৪৫

সবুজ দল: মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), নাঈম শেখ, সাকিব আল হাসান, নাজমুল হোসেন শান্ত, সৌম্য সরকার, আফিফ হোসেন ধ্রুব, মেহেদি হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, তাসকিন আহমেদ, শহিদুল ইসলাম ও আমিনুল ইসলাম বিপ্লব।

লাল দল: তামিম ইকবাল (অধিনায়ক), ইমরুল কায়েস, লিটন কুমার দাস, মুশফিকুর রহিম, মোহাম্মদ মিঠুন, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, শেখ মেহেদি হাসান, নাসুম আহমেদ, মোহাম্মদ সাইফউদ্দীন, মোস্তাফিজুর রহমান ও শরিফুল ইসলাম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *