ওয়াসিম আকরামের ২২ বছর পর দ্বিতীয় ক্রিকেটার হিসেবে ইতিহাস গড়লেন মিরাজ

বাংলাদেশ ক্রিকেট

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে ৩৩ রানে জিতেছে বাংলাদেশ। ৮৪ রানের দারুণ ইনিংস খেলে ম্যাচসেরা পুরস্কার জিতেছেন মুশফিকুর রহিম। দারুণ বোলিং ও ফিল্ডিং করে মোস্ট ভেলুয়েবল ক্রিকেটারের পুরস্কার জিতেছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। অনেকেই হয়ত মিরাজকেই ম্যাচ সেরা দেখতে চেয়েছিলেন, কিন্তু তাদের জানা উচিত মিরাজের এমন দুর্দান্ত পারফর্মে এই পুরস্কার যথেষ্ট ছিলোনা। আর তাই মোস্ট ভেলুয়েবল প্লেয়ারের পুরস্কারটাই বেশ মানাসই তার জন্য।


কেনই বা হবেনা, এদিন নতুন বল হাতে নিয়ে ত একাই রীতিমতো লঙ্কানদের ধ্বসিয়ে দিয়েছেন মিরাজ। নতুন বলে বাংলাদেশের হয়ে সেরা বোলিংয়ের সাথে লঙ্কানদের বিপক্ষে কোন বাংলাদেশী বোলারের দ্বিতীয় সেরা বোলিংয়ের রেকর্ডও গড়েস তিনি। শুধুই কি বল হাতে, ফিল্ডিংয়েও নেন দুর্দান্ত তিন ক্যাচ। এরই ওয়ানডে ক্রিকেটের ইতিহাসে বিরল এক রেকর্ডে জায়গা করে নেন মিরাজ।

এদিন শুরুতেই মিরাজের হাতে বল তুলে দেন বাংলাদেশের অধিনায়ক তামিম ইকবাল। অন্যপ্রান্তে পেসার তাসকিন আহমেদ মার খেলেও মিরাজ নতুন বলে দারুণ করেন। তার হাত ধরেই প্রথম সাফল্য পায় বাংলাদেশ। ইনিংসের পঞ্চম ওভারে তিনি ফিরতি ক্যাচ নিয়ে সাজঘরে পাঠান দ্রুত রান তুলতে থাকা দানুস্কা গুনাথিলাকাকে।

এরপর শ্রীলঙ্কার ইনিংসে মড়ক লাগান অফ স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ। তার ছুঁড়ে দেওয়া ‘ধাঁধাঁ’গুলোর উত্তর যেন জানা নেই লঙ্কান ব্যাটসম্যানদের। তিনি একে একে ফেরান পেরেরা (৫০ বলে ৩০ রান), ধনঞ্জয়া ডি সিলভা (১৫ বলে ৯ রান) ও আশেন বান্দারাকে (২৪ বলে ৩ রান)।

সবমিলিয়ে ১০ ওভারে রানে মিরাজের শিকার ৪ উইকেট। যেখানে ৩ ব্যাটসম্যানকে সরাসরি বোল্ড করেন তিনি।

এর সাথে গুণাথিলাকাকে নিজের হাতের তালুবন্দি করা সহ আরো দুই ক্যাচ নেন মিরাজ। সাকিব আল হাসানের বলে দারুণ ক্যাচ নিয়ে কুসল মেন্ডিস কে ফেরান তিনি। শেষদিকে মোস্তাফিজুর রহমানের বলে ইসুরু উদানা প্যাভিলিয়নের পথ ধরিয়ে দিয়ে বাংলাদেশের হয়ের পথ মসৃণ করেন মিরাজ।

একই ওয়ানডেতে তিন ব্যাটসম্যানকে বল হাতে বোল্ড করার পর ফিল্ডিংয়ে তিন বা তার বেশি ক্যাচ নেওয়ার রেকর্ড এটি ক্রিকেট ইতিহাসে দ্বিতীয়। ১৯৯৯ সালে ত্রিদেশীয় সিরিজে জামশেদপুরে এই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়াসিম আকরাম প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে এই রেকর্ড গড়েছিলেন। সেই ম্যাচে তিন ক্যাচ নিয়েছিলেন আভিষকা গুনাবর্ধনে, মাহেলা জয়াবর্ধনেও অর্জুন রানাতুঙ্গার। আর বোল্ড করেছিলেন মারভান আতাপাত্তু, রুয়ানে কালপেগে ও চামিন্দা ভাসকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *