আফগান শরণার্থী থেকে ফুটবল তারকা – নাদিয়া নাদিম এক অনুপ্রেরণার গল্প

অন্যান্য খবর ফিচার

নাদিয়া নাদিম এমন একটি নাম যা শুনলে কেউ ইউরোপে মহিলাদের ফুটবল অনুসরণ করে। তিনি সম্প্রতি পিএসজির সাথে ফরাসি লিগের শিরোপা জিতেছিলেন এবং রেসিং লুইসভিলে এফসিতে যোগ দিয়েছেন। ক্লাবের হয়ে প্রায় ২০০ গোল করা নাদিয়া এখন ৩৩ বছর বয়সী কিন্তু দাপুটে খেলোয়াড়।

নাদিয়া ডেনমার্কের জার্সিতে ৯৮ ম্যাচ খেলে ৩৮ টি গোল করেছেন। তবে আফগান এই নারীর এই সফল জীবনের যাত্রা একটুও সহজ ছিল না। মাত্র ১২ বছর বয়সে নাদিয়া তালেবানদের হাতে তার বাবাকে হারান। চলুন আজ আমরা এই সংগ্রামী নারীর জীবন যুদ্ধ সম্পর্কে কিছু জেনে নি।

নাদিয়া আফগানিস্তানের হেরাত শহরে ১৯৮৮ সালেভজন্মগ্রহণ করে। ২০০০ সালে তার বাবা যিনি আফগান ন্যাশনাল আর্মিতে একজন জেনারেল ছিলেন তালেবানরা তাকে ফাঁসি দিয়েছিল। তারপরে নাদিয়া তার পরিবার সহ ডেনমার্কে পালিয়ে যান।

এই ডেনমার্কেই তাঁর ফুটবল ক্যারিয়ারের শুরু। নাদিয়া ফ্রান্সের বিখ্যাত ক্লাব পিএসজিতে যাওয়ার আগে বি-৫২ অ্যালবার্গ এবং টিম ভিবার্গ ও ব্লু-স্কাই এফসির প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন।

ডেনমার্কের হয়ে নাদিয়ার অভিষেক হয় ২০০৯ সালে। তিনি ২০১৮ সালে ম্যানচেস্টার সিটির হয়েও খেলেছিলেন।
নাদিয়ার বর্তমান স্বপ্ন ডেনমার্কের জন্য শতম্যাচ খেলা, সবকিছু ঠিক থাকলে যা এই বছরই হবার কথা।

নিজ জন্মভূমি থেকে পালিয়ে আসা সেই মেয়েটি নাদিয়া এখন যারা হাজারো প্রতিকুলতার মাঝে স্বপ্ন অর্জন করতে চান তাদের কাছে রোল মডেল।

উল্লেখ্য, নাদিয়া নাদিম ফুটবলের পাশাপাশি ডাক্তারি পাশ করেছে এবং এখনো পড়ছেন একজন রিকন্সট্রাক্টিভ সার্জন হওয়ার জন্য। তিনি বিশ্বের ১১টি ভাষায় কথা বলতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *