মুজুরাবানিকে যা বলেছিলেন তাসকিন; জানালেন নিজেই

বাংলাদেশ ক্রিকেট

হারেরে টেস্টের দ্বিতীয় দিনে উত্তাপটা ছড়িয়ে দেন তাসকিন আহমেদ। ব্যাট হাতে দারুণ জবাবের পর কথার যুদ্ধেও জিম্বাবুয়ে বোলারদের জবাব দিয়ে যাচ্ছিলেন এই টেলেন্ডার৷ একটা সময় জিম্বাবুয়ের সফল বোলার মুজুরাবানিও তাসকিনের মধ্যকার কথার লড়াইও দেখা যায়। সেই সময় কি কারণে এমন ঘটনা ঘটেছিল, আর কি কারণে তাসকিনের তেড়ে যাওয়া তার বিস্তারিত আজ দিনের খেলা শেষে তাসকিন জানালেন নিজেই।


১৩২ রানে উইকেট নেওয়ার পরও দ্বিতীয় দিনে যেন নাকানিচুবানি খাচ্ছিল জিম্বাবুয়ের বোলাররা। দশম ব্যাটসম্যান তাসকিন আহমেদ জিম্বাবুয়ে পেসারদের একের পর এক অসাধারণ কাভার ড্রাইভে মুগ্ধ করে যাচ্ছিলেন। তাই সফলতা না পেয়ে একটা সময় তাসকিনকে স্লেজিং করতে থাকেন জিম্বাবুয়ের বোলাররা। তবে সেই স্লেজিংয়ে জবাব ব্যাট হাতেই দিচ্ছিলেন তাসকিন।

দিনের খেলা শেষে তাসকিন জানান সেই ঘটনার আদ্যোপান্ত। তিনি বলেন, ‘ওরা সব পেস বোলাররা এসে আমাকে অ্যাটাক করছিল, বাউন্সার মারছিল, ভালো জায়গায় বল করছিল, আউট করার চেষ্টা করছিল। আমি মাশাআল্লাহ ভালোই সামলাচ্ছিলাম। বিরক্ত হয়ে আমাকে বেশ কয়েকবার গালিও দিয়েছে।’

কিন্তু পেসার মুজুরাবানি একবার সীমা অতিক্রম করলে ধৈর্য হারিয়ে কথাতে জবাব দেন তাসকিনও। ঘটনা ঘটে বাংলাদেশের ইনিংসের ৮৫তম ওভারে। মুজুরাবনিকে পরপর বাউন্ডারির হাঁকানোর পর চতুর্থ বল মোকাবেলা করতে বেগ পেতে হয় তাসকিনকে। এসময় নিজেকে চাঙ্গা রেখে নাচের ভঙ্গি করেন তিনি। এ সময় বোলার মুজারাবানি তাসকিনের দিকে তেড়ে যান। তখন তাসকিনও তেড়ে এসে হেলমেট মুজুরাবানির গায়ে ঠেকিয়ে দেন। এমন ঘটনা উত্তাপ ছড়ায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও।

তবে তাসকিন অবশ্য বিষয়টিকে অভিযোগের পর্যায়ে নিয়ে যেতে নারাজ। এ ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘তৃতীয়বার যখন গালি দিয়েছিল তখন আমি তেড়ে গিয়েছিলাম একটু। বলেছি- কেন গালি দিচ্ছ, বল নিয়ে পারলে কিছু করো! এটাই আসলে… তেমন কিছু না।’

উল্লেখ্য, এদিন ৭৫ রানের ইনিংস খেলে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের সাথে ১৯১ রানের জুটি গড়েন তাসকিন। যা ৯ম উইকেটে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ আর বিশ্বের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রানের জুটি। এই জুটিতে ভর করেই প্রথম ইনিংসে ৪৬৮ রানের পাহাড় গড়ে টাইগাররা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *