শুরু আর শেষের অনন্য রেকর্ড খাতায় মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ

বাংলাদেশ ক্রিকেট

হারারে টেস্টে ২২০ রানের বিশাল ব্যবধানে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। ব্যাট হাতে প্রথম ইনিংসে দলের বিপর্যয়ে ক্যারিয়ার সেরা অপরাজিত ১৫০ রানের ইনিংস খেলে ম্যাচ সেরা হয়েছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তবে সব কিছু ছাড়িয়ে ভাইরাল সাদা পোশাকের ক্রিকেট ছেড়ে দিচ্ছেন বাংলাদেশ দলের অভিজ্ঞ এই তারকা ক্রিকেটার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

এদিকে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে এই ম্যাচ খেলে টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসর নেয়ার মাধ্যমে নজিরবিহীন এক কীর্তির মালিক হয়ে গেলেন এ ডানহাতি মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যান ও অফস্পিনার। টেস্ট ক্যারিয়ারের নিজের অভিষেক ম্যাচে ৫ উইকেট ও শেষ ম্যাচে সেঞ্চুরি করা একমাত্র ক্রিকেটার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

২০০৯ সালের ৯ জুলাই ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে কিংসটাউন টেস্টে অভিষেক হয়েছিল মাহমুদউল্লাহর। সেই ম্যাচে দুই ইনিংসেই ৮ নম্বরে নামানো হয় তাকে। ব্যাট হাতে খেলেন ৯ ও ৮ রানের ইনিংস। তবে বল হাতে প্রথম ইনিংসে ৩ ও পরের ইনিংসে ৫ উইকেট নেন।

তখনকার সময়ে বাংলাদেশের তৃতীয় বোলার হিসেবে টেস্ট অভিষেকে ৫ উইকেট নেয়ার রেকর্ড গড়েন তিনি। শুধু তাই নয়, দুই ইনিংস মিলে ৮ উইকেট নিয়ে বাংলাদেশের পক্ষে বিদেশের মাটিতে এক ম্যাচে সেরা বোলিংয়ের রেকর্ডটাও নিজের করে নেন রিয়াদ।

আর অভিষেকের প্রায় ১২ বছর পর ২০২১ সালের ৭ জুলাই নিজের শেষ ম্যাচটি খেলতে নেমেছেন মাহমুদউল্লাহ। দীর্ঘ ১৬ মাস পর জাতীয় টেস্ট দলে ফিরে ব্যাটিংয়ে নামার সুযোগ পান সেই ৮ নম্বরে। যেমনটা তাকে নামানো হয়েছিল ২০০৯ সালের অভিষেক টেস্টে।

এদিন প্রথমে লিটন দাসকে নিয়ে সপ্তম উইকেটে ১৩৮ ও পরে তাসকিন আহমেদের সঙ্গে নবম উইকেটে রেকর্ডগড়া ১৯১ রানের জুটি। দলীয় ১৩২ রানের মাথায় ষষ্ঠ উইকেটের পতনের পর ব্যাটিংয়ে নেমে শেষপর্যন্ত আর আউটই হননি মাহমুদউল্লাহ। তিনি নামার পর বাংলাদেশ দল পেয়েছে আরও ৩৩৬ রান। যেখানে মাহমুদউল্লাহর একার অবদান অপরাজিত ১৫০ রান। শেষ ম্যাচেই ক্যারিয়ারের সেরা ব্যাটিং ইনিংস খেললেন তিনি।

এখানেও রয়েছে কাকতাল। ক্যারিয়ারের প্রথম ম্যাচে নেয়া ৫১ রানে ৫ উইকেট এখনও পর্যন্ত টেস্ট ক্রিকেটে তার সেরা বোলিং ফিগার। আর শেষ ম্যাচে খেলা ১৫০ রানের অপরাজিত ইনিংসটিই হয়ে রইল ক্যারিয়ারের সর্বোচ্চ রানের ইনিংস। আর এ দুইয়ের যুগলবন্দীতে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদই প্রথম।

আন্তর্জাতিক টেস্ট ক্রিকেটে ক্যারিয়ারের শেষ ম্যাচে সেঞ্চুরি করেছেন মাহমুদউল্লাহসহ ৩৭ জন ব্যাটসম্যান। ল্লকিন্তু তাদের কেউই ক্যারিয়ারের প্রথম ম্যাচে ৫ উইকেট নিতে পারেননি।

উল্লেখ্য, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ সাদা পোশাকে খেলেছেন সবমিলিয়ে ঠিক ৫০টি টেস্ট। ব্যাট হাতে ৫ সেঞ্চুরি ও ১৬ ফিফটিতে ৩৩.৪৯ গড়ে ২৯১৪ রান করেছেন। আর বল হাতে একবার ফাইফারসহ নিয়েছেন মোট ৪৩ উইকেট। ফিল্ডার হিসেবে ধরেছেন ৩৮টি ক্যাচ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *