দুই মাস আগেই পাকিস্তান সিরিজের প্রস্তুতি শুরু করেছে টাইগাররা

বাংলাদেশ ক্রিকেট

বিশ্বকাপ শেষ হলেই আরও এক মিশনে নামবে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। ঘরের মাঠে তিন টি-টোয়েন্টি ও দুইট টেস্ট ম্যাচ খেলতে বাংলাদেশ সফরে আসবে পাকিস্তান। প্রথম টেস্ট মাঠে গড়াবে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে। সেই প্রস্তুতি হিসেবেই আগামীকাল (১৬ সেপ্টেম্বর) এই মাঠেই দুইটি চারদিনের ম্যাচের প্রথমটি খেলতে নামছে হাই পারফরম্যান্স (এইচপি) ও ‘এ’ দল। পাকিস্তানের বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্টের প্রস্তুতি এই ম্যাচগুলো দিয়েই সেরে রাখতে চায় নাজমুল হোসেন শান্তরা।


এমনিতে বাংলাদেশ টেস্ট খেলে অনিয়মিত। এদিকে ঘরোয়া লঙ্গার ভার্সনেও পড়েছে ভালো বিরতি। যে কারণে সর্বশেষ জিম্বাবুয়েতে টেস্ট খেলা আসা ক্রিকেটাররা নেই কোনো প্রকার ম্যাচ প্রস্তুতিতে।

শুধু টেস্ট খেলা মুমিনুল হক, নাজমুল হোসেন শান্ত, আবু জায়েদ রাহি, সাদমান ইসলাম, এবাদত হোসেনদের জন্য প্রস্তুতির সুযোগ করে দিতে উদ্যোগ নেয় বিসিবি। চট্টগ্রামে চলমান এইচপি ক্যম্পে ‘এ’ দল গঠন করে আয়োজন করছে ম্যাচ। যেখানে দুইটি চারদিনের ম্যাচের সাথে আছে তিনটি একদিনের ম্যাচ। চারদিনের প্রথম ম্যাচটি মাঠে গড়াচ্ছে আগামীকাল।

এই ম্যাচগুলো কাজে দিবে পাকিস্তান সিরিজ ও আগামী মাসে মাঠে গড়াতে যাওয়া জাতীয় ক্রিকেট লিগেও (এনসিলে)। এমনটাই বলছেন ‘এ’ দলের বাঁহাতি ব্যাটসম্যান নাজমুল হোসেন শান্ত।

আজ (১৫ সেপ্টেম্বর) এক ভিডিও বার্তায় শান্ত বলেন, ‘সামনে পাকিস্তান সিরিজ আছে, চট্টগ্রামে ম্যাচ আছে। এই সিরিজে আমরা যে চার দিনের ম্যাচ খেলব তা চট্টগ্রাম টেস্টে কাজে লাগবে। এতদিন তো সবাই নিজ নিজ বিভাগে আলাদা অনুশীলন করেছি।’

‘একসাথে অনুশীলনের সুযোগ ছিল না। আবার একসাথে অনুশীলন করা, এরকম সিরিজ খেলতে পারা আমাদের খেলোয়াড়দের জন্য খুবই ভালো। সামনে এনসিএলও আছে। এটা ভালো প্রস্তুতির জায়গা। ব্যাটসম্যানরা রান পেলে, বোলাররা উইকেট পেলে এনসিএলে আত্মবিশ্বাসী থাকবে ও ভালো করার সুযোগ বেশি থাকবে।’

‘আমরা যারা টেস্ট খেলি বা সাদা বলে কম খেলি তারা একত্রিত হয়ে সিরিজ খেলার সুযোগ পেয়েছি। এটা সবার জন্যই ভালো সুযোগ। লম্বা সময়ের বিরতি ছিল। ম্যাচের মধ্যে আসা খুব জরুরী ছিল। সাধারণত অনেক দিন পর পর টেস্ট খেলি। এক মাস বা ১৫ দিন পরপর খেলি তা না। দুটি টেস্টের মধ্যে বিরতি থাকে। ম্যাচের ভেতরে আসার দরকার ছিল।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *