উত্তেজনাকর ম্যাচে সেন্ট লুসিয়াকে হারিয়ে সিপিএল চ্যাম্পিয়ন সেন্ট কিটস

সিপিএল (ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ)

ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লীগ সিপিএলে সেন্ট লুসিয়াকে হারিয়ে শিরোপা জিতে নিলো গেইল-লুইসদের সেন্ট কিটস এন্ড নেভিস পেট্রিয়টস। তীব্র উত্তেজনাকর ম্যাচে ৩ উইকেটের জয় পায় সেন্ট কিটস। আর এতে করেই এবারের সিপিএলের শিরোপা ঘরে তুললো গেইলরা।


শুরু থেকেই জমে জমজমাট টি-২০ মেজাজের এই আসরে উত্তেজনার পারদ ছিলো চড়া। সেসব উত্তেজনা উতরে ফাইনালে উঠেছিলো সেন্ট লুসিয়া ও সেন্ট কিটস। টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় সেন্ট লুসিয়া দলপতি আন্দ্রে ফ্লেচার। শুরুতেই রাখিম কার্ণওয়ালের সাথে ভালোই শুরু করেছিলেন ফ্লেচার। কিন্তু দলীয় ২৫ ও ব্যক্তিগত ১১ রানে ফিরে যান ফ্লেচার। কিন্তু ক্রিজে টিকে ছিলেন রাখিম। তিনি ৩২ বলে ৪৩ রান করে ফিরে যাবার পর দলকে টেনে তুলে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন রোস্টন চেজ। কিন্তু চেজও ৪০ বলে ৪৩ রান করে আউট হন।

দলের রানের চাকা যখন একেবারেই টি-২০ মেজাজের হচ্ছিলো না তখন ব্যাটিং কারিশমা দেখান টেল এন্ডার ব্যাটসম্যান কেমো পল। ৫ ছক্কায় ২১ বলে ৩৯ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন তিনি। শেষ অব্দি নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৫৯ রান তোলে সেন্ট লুসিয়া। সেন্ট কিটসের পক্ষে ২ টি করে উইকেট নেন ফওয়াদ আহমেদ ও নাসিম শাহ।

১৬০ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শূন্য রানেই বিদায় নেন ইউনিভার্স বস ক্রিস গেইল। এরপর গত দুই ম্যাচে দূর্দান্ত খেলা লুইসও মাত্র ৬ রান করে প্যাভিলিয়নে ফেরেন। তবে রাদারফোর্ড ও জসুয়া ডা সিলভা সাবধানী খেলা খেলতে থাকেন। রাদারফোর্ড ২২ বলে ২৫ এবং সিলভা ফেরেন ৩২ বলে ৩৭ রান করে। এরপর সেন্ট কিটস দলপতি ডোয়াইন ব্রাভো ১১ বলে ৮ রান করে আউট হলে চাপে পড়ে যায় সেন্ট কিটস।

কিন্তু চাপ থেকে দলকে টেনে তোলেন ডমিনিক ড্রেকস। ফ্যাবিয়ান এলেনকে সাথে নিয়ে স্কোরবোর্ডের চাকা সচল রাখেন ড্রেকস। ৩ চার ও ৩ ছক্কায় ২৪ বলে ৪৮ রান করে অপরাজিত থেকে দলকে জয় এনে দেন ড্রেকস। আর এতে করেই ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৬০ রান তুলে শিরোপা জয় নিশ্চিত করে সেন্ট কিটস। এই জয়ে সেন্ট কিটস শিবিরে যেন বাঁধভাঙা উল্লাস।

অপরাজিত ব্যাটিংয়ে ম্যাচ জিতিয়ে ম্যান অফ দ্য ফাইনাল নির্বাচিত হয়েছেন ড্রেকস। অন্যদিকে পুরো টুর্নামেন্টে দারুন পারফরম্যান্স দেখিয়ে ম্যান অফ দ্যা টুর্নামেন্ট হয়েছেন রোস্টন চেজ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *