ক্রিকেট ইতিহাসের সেরা পাঁচটি মজার সেলিব্রেশন (ভিডিওসহ)

ফিচার

‘Life is a journey’. মানুষের জীবন অজানার উদ্দেশ্যে করা অভিযাত্রার মতো। এই যাত্রা পথে মানুষ প্রতি মুহূর্তেই নতুন কিছুর আশায় থাকে। ভালো কিছু করার আকাঙ্খাই মানুষকে বাঁচিয়ে রাখে। আর কাঙ্খিত সাফল্য অর্জনের পর তার জন্য উৎযাপন করাটাও মানুষের সহজাত প্রবৃত্ত।

ভদ্রলোকের খেলা ক্রিকেটও এর ব্যতিক্রম নয়। বড় কোনো স্কোর করতে পারলে কিংবা উইকেট পেলে সেটার জন্য ক্রিকেটারদের উৎযাপন করাটা খুব স্বাভাবিক বিষয়। কিন্তু মাঝে মাঝে কোনো কোনো ক্রিকেটার উৎযাপন করতে গিয়ে এমন উদ্ভট উদ্ভট কান্ড করে বসেন, যেগুলো দেখে দর্শকরা পর্যন্ত আনন্দ পান। আজকের প্রতিবেদনে আমরা ক্রিকেটারদের এমনই কিছু উৎযাপন দেখবো, যেগুলো আমরা হয়তো আগে কখনোই খেয়াল করিনি।

১ | ড্রাগন মুশি

ড্রাগন মুশি। ছবি : সংগৃহীত৷

বাংলাদেশের সাবেক টেস্ট অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম বর্তমানে বাংলাদেশিদের মধ্যে ফর্ম্যাটির সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক। একইসঙ্গে ফর্ম্যাটটিতে তিনটি ডাবল সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন তিনি। যার দুইটিতেই বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ ছিল জিম্বাবুয়ে। মুশফিক সর্বশেষ যেবার ডাবল সেঞ্চুরি করেছিলেন, সেটাও মাত্র কয়েকদিন আগেরই ঘটনা। মিরপুরের শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আয়োজিত একমাত্র টেস্টটিতে অপরাজিত ২০৩ রানের অনবদ্য ইনিংসটি খেলেন তিনি। ঐদিন ২০০ রানের ম্যাজিক্যাল স্কোর ছোঁয়ার পরপরই ড্রাগনের মতো ভঙ্গিতে ডাবল সেঞ্চুরির উপলক্ষটি উৎযাপন করেছিলেন মুশফিক। পরে অবশ্য তাঁর মুখেই এরকমভাবে উৎযাপন করার কারণটি জানা গিয়েছিল। তিনি জানান যে, বিশেষ রকমের ঐ উৎযাপনটি তিনি তাঁর ছেলের জন্য করেছিলেন, যে কিনা ড্রাগন খুব পছন্দ করে। এর আগে নিদাহাস ট্রফিতেও দলকে জিতানোর পর ‘নাগিন ডান্স’ করে ভাইরাল হয়েছিলেন এই টাইগার সুপারস্টার।

https://youtu.be/-OXSRnJd-Zs

https://youtu.be/-OXSRnJd-Zs

২ | তাবরাইজ শামসির শয়তানের মুখোশ

জোহানসবার্গে জন্ম নেওয়া এই চায়নাম্যান বোলার অবশ্য তাঁর নিজের দেশ দক্ষিণ আফ্রিকার জার্সি গায়ে এখনো তেমন একটা নাম কুঁড়াতে পারেননি। তবে ২০১৮ সালের দিকে তিনি বেশ পরিচিতি লাভ করেছিলেন তাঁর অদ্ভুত উৎযাপনের কারণে। ঐ সময়টায় উইকেট পাওয়ার পর তিনি শয়তানের মতো দেখতে একটি মুখোশ পরে দৌঁড়ে উৎযাপন করতেন। সিপিএলে সেইন্ট কিটস এবং নেভিস পেট্রিয়সের হয়ে খেলার সময় তিনি এমনটা করতেন। তাছাড়া এমএসএলে পার্ল রক্সের হয়ে খেলার সময়েও তাঁকে এমনভাবে উৎযাপন করতে দেখা যেতো। অবশ্য ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসির কাছে এমনভাবে উৎযাপন করাটা ভালো লাগেনি। তাই এমএসএলের ২০১৮ সালের আসরটি চলাকালীন সময়েই আইসিসি ঐ ধরনের উৎযাপন করাটাকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছিল। অবশ্য তাবরাইজ সেসময় বলেছিলেন যে তিনি ব্যাটসম্যানদের অপমান করার জন্য নয় বরং নিজেকে প্রশান্তি দেওয়ার জন্যই এমনটা করতেন।

https://youtu.be/ShtCh2fSJHI


৩ | তিনেশ পন্যাঙ্গরা যখন রোবোটিক মাছ!

নব্বইয়ের দশকের অনেকেই হয়তো ‘বিগ মাউথ বিল্লি ব্যাশ’ নামের রোবোটিক মাছটিকে চিনে থাকবেন। রাবার এবং প্লাস্টিকের মিশ্রণে তৈরি এই বস্তুটি মানুষের দিকে তাকিয়ে গান গাইতে পারতো এবং গান গাওয়ার সময় এটি তার লেজ নাচাতো। ১৬ বছর পর, ২০১৫ সালের বিশ্বকাপে আবারো এই রোবটটির স্মৃতি ফিরিয়ে আনেন জিম্বাবুইয়ান গতি তারকা তিনেশ পন্যাঙ্গরা। ঐ ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে শুরুটা বেশ দারুণভাবেই করেছিল তারা। প্রোটিয়াদের ইনিংসের নবম ওভারে যখন পন্যাঙ্গরা ওপেনার হাশিম আমলাকে ফিরিয়ে দেন, তখন দক্ষিণ আফ্রিকার সংগ্রহ ছিল ২ উইকেটে মাত্র ২১ রান। আমলাকে ফেরানোর পর পন্যাঙ্গরা মাটিতে শুয়ে ঐ রোবোটিক মাছের মতো ভঙ্গিতে উইকেট উৎযাপন করেন। অবশ্য সেদিন শেষ হাসিটা প্রোটিয়াদের মুখেই ফুটেছিল । ৫৬ রানের জয় নিয়ে সাউথ আফ্রিকানরা তাদের কোয়ার্টার ফাইনালের পথ আরো পরিষ্কার করে নিয়েছিল। দুঃখজনকভাবে, ঐ ম্যাচে পন্যাঙ্গরাকেও হজম করতে হয়েছিল ৭৩ রান।

https://youtu.be/ThvoIGRxTEA

৪ | ক্বয়িস আহমেদের ফ্রন্ট ফ্লিপ

ক্বয়িস আহমেদ আফগানিস্তানের প্রথম সারির লেগ স্পিনারদের মধ্যে একজন। অবশ্য নীল-লাল জার্সিতে এই তরুণ তুর্কিকে নিয়মিত দেখা যায় না। তার কারণ দলে রশিদ খান এবং মুজিব উর রহমানের মতো নামকরা লেগিদের উপস্থিতি। তবে ক্বয়িস আহমেদের সিপিএলে এমনকি বিগ ব্যাশ লিগেও খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে। বল হাতে চমক দেখানোর পাশাপাশি সেখানে তিনি তার অনন্য ধাঁচের উৎযাপন দিয়েও দর্শকদের মন জয় করে নিয়েছেন। সেন্ট লুসিয়া স্টারস কিংবা হবার্ট হারিকেনসের হয়ে তিনি যখন যখন উইকেট পেয়েছেন, মোটামুটি তখনই কিছু দূরে দৌঁড়ে গিয়ে লাফিয়ে শূন্যে নিজের শরীরকে ৩৬০ ডিগ্রি কোণে ঘুরিয়ে আবার মাটিতে নিয়ে এসেছেন। তার দৃষ্টিনন্দন এই ফ্রন্ট ফ্লিপকে সিপিএলের সেরা উৎযাপনগুলোর একটি হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে।

https://youtu.be/0IdYMUFfRmw

৫ | আন্দ্রে রাসেলের পুশ আপ

ক্যারিবিয়ান এই তারকাকে আমরা তার ধুমধাড়াক্কা ব্যাটিংয়ের জন্যই চিনি। কিন্তু ২৯১টি উইকেট শিকারি রাসেলের আসল পরিচয় হচ্ছে, তিনি একজন পেস-অলরাউন্ডার। খেলার মাধ্যমে মানুষের মন জয় করে নেওয়ার পাশাপাশি তিনি এটাও ভালো করেই জানেন যে কিভাবে মানুষেকে আনন্দ হয়। তাই তো সিপিএলে সেন্ট লুসিয়া স্টারসের বিপক্ষে খেলার সময় অন্যরকম এক দৃশ্যের অবতারণা করেন তিনি। উইকেট পাওয়ার পরপরই দুইহাতে ভর করে পুশ আপ দিয়ে দেখান এই শক্তিশালী তারকা। তার এই উৎযাপন সেসময় অনেক মানুষকে আনন্দ দিয়েছিল।

https://youtu.be/0IdYMUFfRmw

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *